পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > শিল্প ও সাহিত্য > কবিতা : ‘নির্জন সিড়ির কাছে আমার প্রার্থনা ‘

কবিতা : ‘নির্জন সিড়ির কাছে আমার প্রার্থনা ‘

বিশেষ দীর্ঘ কবিতা

  ‘নির্জন সিঁড়ির কাছে আমার প্রার্থণা’
                  বিদ্যুৎ ভৌমিক
ক ) দূর থেকে দূরে উর্ধ্ববাহু ঘাসকে ডাকে প্রোদ্ভিন্ন
তরঙ্গের কাছে । শৈলীর ভিতর যেন সুন্দর করে
ওঠা ~ নামা — মৃত্যু স্পর্শ করে সীমানায় চেয়ে আছে
চাঁদ **** জাগবার নরম আনন্দে স্বপ্ন ছিঁড়ে জেগে
ওঠে পাতার ছায়ারা, আরো কত মুখরেখা ।
এখানে অভিশাপ, এই ঘরে স্মৃতি ধ্বনি বিদেহী চতুর
নগ্ন শৈশব নিয়ে পেরিয়ে যাই সন্ধ্যার বকুল বাগানে
এসো আমার মতো নগ্ন সমাধিতে *****
মগ্ন স্বেচ্ছায় ঠেলি কবিতার কবোষ্ণ লাইন
ভিতর থেকে দেখি সবুজ কি হলুদ ;
আমার অভাগা আত্মা যেন ।
খ ) দু’জনের মধ্যে কথা । আমি এবং আমার মৃত শরীর !
এই দু’জন একান্ত নির্জনে চোখের পাতার বর্ণপরিচয়ে
নিঃশ্বাস ভাঙা মৌন স্বরে পঙ্গু নিশাচর *** মাঝে মধ্যে
বিষাদ স্বপ্নে অতলান্তের বিরক্ত ছুঁয়েছে ওদের , —
এইসব কোথাকার বন্ধ দরজায় অন্ধকার সিঁড়ি এবং
সন্ধ্যাবেলা ~ রাত্রিবেলা ***
দু’জনের একজন প্রায়ই মৃত্যু দেখে সশরীরে লোভহীন
বিশেষ কিছু অন্ধকার ব্যক্তিগত ক্যালেন্ডারের তারিখ
বিশেষ কিছু প্রতীক্ষা চাপা আর্তরবে চোখের জলের
লবণ নদী, — অথচ আমি এবং আমার মৃত শরীর
শ্মশান দেখিনি কোনোদিন !
গ ) শ্রেষ্ঠ শিরীষ মনে বহুবার অতলান্ত থেকে সুগন্ধ
নিতে – নিতে পার্থিব চিন্তাগুলো আঙুল ছুঁয়ে দেখেছে
এরা কি সত্যি বন্ধু ও সঙ্গী ( এতোদিন সঙ্গে যারা ছিল )
এরপর ভিতর – বাহির কাদা ও কলঙ্ক শাপমোচনের সূত্র
খুঁজে চলে **** রাতের মধ্যে নির্ঘুম সময় ওদের অশান্ত
দুঃখবোধে ভীষণ এলোমেলো ~~~~
সেই অশেষ নীরবতায় অনন্ত বিপুলতা
সেই প্রণয় সুবাসের স্মৃতি গোধুলি ছায়ায় অন্ধ
সারাজীবন, — এখানে বসন্ত আসে, আবার চট করে
ফিরেও যায় ! সেই নির্জন সিঁড়ির কাছে আমার প্রার্থণা
একা দাঁড়িয়ে পাতালে নেমে যাবার কথা হয়েছে
আমার সাথে আর একজনের **** মনুষ্যত্ব এবং চরিত্র
মন দেওয়া নেওয়া করতে করতে শুক্লা দ্বাদশীর চাঁদকে
স্বপ্ন দেখিয়েছে ওর কাছে আমৃত্যু থাকার । সময় ঘুমিয়ে
গেলে মন ঘোরে পাহাড়ে ~ সাগরে ****
বনস্পতির ডালে ডালে মেঘ ছায়া ; মোহন পুরুষ —
শেষ স্বপ্ন অতল গভীরে জ্যোৎস্না নিভিয়ে দিলে আমাকে
সর্বনাশের দরজা দেখায় ধর্মভ্রষ্ট পাখি ! এবারের বৃষ্টিতে
ভিজেছিল পতঙ্গের আদিম ইচ্ছা , অথচ ব্যক্তিগত
ভালোবাসা রাস্তার ধারে শব্দহীন সঙ্গিনীর লজ্জা স্পর্শ
করে দুহাত ডুবিয়ে । একবেলা সুখের পর ছুটে আসে
দারুণ দুঃসময় ****
এবারের বর্ষা দিনে আমি অস্পষ্ট গম্ভীর হয়ে আছি
প্রত্যন্ত রক্তের ভেতর স্বপ্ন ছেঁড়া টুকরো স্মৃতিগুলো
আমার চরিত্র নিয়ে কবিতার কাছে কিছু বলতে চাইনি,
অনেক বছর পর হেমন্তের সকালে বুকের ভেতর থেকে
রক্ত গোলাপ ঠোঁট খুলে বেরিয়ে আসে বিছানা – চাদরে ।
সময় জেগে ওঠে এক ঘুম দিয়ে, অন্যদিকে প্রতিশোধ
নিতে কবিতারা !
ঘ) স্পর্শ দিতেই ঘুম কাদা থেকে উঠে আসে অতল হুকুম
শ্রেষ্ঠা নারীর নিঃশ্বাস স্তব্ধ হিমানী সম্ভাষণে আমাকে
উন্মাদ করে মধ্যরাতে অবিন্যস্ত বিছানায় ** সময় তার
পাহাড় চূড়া স্তন যুগলে ক্লান্ত দীর্ঘশ্বাস ছড়িয়ে সাম্প্রতিক
বাতাসকে শোনায় নতুন অন্তরা ।
ভাবছি যাবতীয় জ্যোৎস্নায় স্পষ্টভাবে চুম্বন করি তাকে
এধারে – ওধারে দৃষ্টির ভেতর এক বুক বিস্মৃতির ঢেউ ;
কালো রাত্রির দুর্বোধ্য অন্তরীক্ষ ****
যেন বহতা স্বপ্নের গভীরে অবিশ্বাস্য ঘৃণা ছড়ায় !
স্পর্শ নিতে এসে ঘনায়মান সময় দীর্ঘজীবি হতে থাকে ।
বিছানার নিদ্রা ঘোরে মায়াবী আঙুল এবং সুরম্য নগ্নতা –
নিঃশব্দে পরীক্ষা করে চলছিল দৃশ্যকলার রূপকথা ।
তুমি কে ? দেখি ; নিসর্গ অন্ধকারের ভেতর ছায়া
অভিমানিনী দাঁড়িয়ে !
আকস্মিক হৃদকম্পে বিদ্যুৎ পুড়ে ছাঁই ।
এরপর একটু দূরে আমার সকাল ****
প্রাতঃকালীন স্বপ্ন এবং মেষপালকের গান
বাকিটা পথ হাঁটলেই ধরে নেবে, শ্রীরামপুর হুগলির
লেভেল ক্রসিং – এ মাতাল ভিখারী এক ভদ্রলোকের
সাইকেলের হাওয়া খুলে দিলে ; আমার বুকের খুব কাছে
চলে আসে ভিয়েতনাম ! এখন শুধু কবিতা যাপন !
এরপর পৃথিবী ছাড়িয়ে নিঃসঙ্গ অনন্ত একাকীত্ব ****
সে যাই হোক ; যে কোনও রাস্তায় যেতে বিন্দু মাত্র দ্বিধা
নেই, — এতো আলোর ভেতর গোপনে রাখা আছে
অন্ধকার **** সেখানেই পলেস্তারা খসার শব্দ ;
অপরাংশে এক মুঠো মেঘ ছায়া !!
********************­********************­*********
কবি বিদ্যুৎ ভৌমিক
৬৫ /১৭, ফিরিঙ্গি ডাঙা রোড, শ্রীরামপুর, হুগলি, পশ্চিমবঙ্গ ভারত।

x

Check Also

এই যে ম্যাডাম ? ওড়না কোথায় ?

এই যে ম্যাডাম ? ওড়না কোথায় ? মাইনুল হাসান এই যে ম্যাডাম ? ওড়না কোথায় ? বুকটা কেন খালি ? ইভটিজারে শিঁস মারিলে, তখন তো দেন গালি । চুপ বেয়াদব ! বলিস কীসব ? ঘরে ...

একুশে পদক পাচ্ছেন ২১ বিশিষ্ট ব্যক্তি

সচিবালয় প্রতিবেদক : বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য ২০১৮ সালের একুশে পদক পাচ্ছেন ২১ বিশিষ্ট ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় রাষ্ট্রীয় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এই পদকের জন্য মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করেছে। মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী ...

পুঠিয়ার প্রবীণ সাহিত্যিক আবদুল মজিদ মন্ডল আর নেই

পুঠিয়া প্রতিনিধি: রাজশাহীর পুঠিয়ার প্রবীণ কবি ও সাহিত্যিক আবদুল মজিদ মন্ডল আর নেই ইন্নাল্লিাহে…..রাজিউন। রবিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশাষ ত্যাগ করেন। ...

শিরোনামঃ