পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > রাজধানী > শিশুপ্রহরে অন্যরকম আমেজ

শিশুপ্রহরে অন্যরকম আমেজ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

সাড়ে তিন বছরের মোহাইমিনার এবারই প্রথম আসা অমর একুশে গ্রন্থমেলায়। মায়ের কোলে চড়েই ঘুরছে পুরো মেলা। অক্ষর চেনে না। কিন্তু নানা ধরনের ছবি আঁকা বইয়ের প্রচ্ছদ দেখে হাত দেয় তাতে।

কেমন লাগছে জানতে চাইলে মিষ্টি হেসে মায়ের বুকে মুখ গুঁজে নেয়। ফের জিজ্ঞেস করতেই মায়ের অনুরোধে বলে ভালো লাগছে। কিছুক্ষণের মধ্যে ভাব হয়ে গেলে বলে, ‘আমি অনেকগুলো গল্প জানি। ‍শুনবে’?

তার মতো হাজারো শিশু-কিশোর আর তাদের অভিভাবকদের আনাগোনায় মেলা কর্তৃপক্ষের ঘোষিত শনিবারের শিশুপ্রহরে ছিল অন্য রকম এক আমেজ।

বেলা ১১টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত শিশু-কিশোরদের জন্য নির্ধারিত ছিল মেলার সময়। শিশুপ্রহরে বাংলা একাডেমি চত্বরজুড়ে ছোটাছুটি, মা-বাবার হাত ধরে স্টলে স্টলে বই দেখে, বই কিনে, নতুন বই বুকে জড়িয়ে বাড়ি ফিরছে তারা। বই কেনার পাশাপাশি শিশুদের মন কেড়েছে সিসিমপুরের হালুম-ইকরি-টুকটুকি-শিকু। সেখানে তাদের জন্য বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দাঁড়িয়ে ছিল তারা। তাদের সঙ্গে মেতে উঠেছিল তাদের ভক্তের দল। শিশুদের জন্য তৈরি মঞ্চে নানা ধরনের শিক্ষণীয় খেলায় অংশ নিয়ে অন্যরকম একটি দিন পার করেছে শিশুরা। সন্তানের সঙ্গে অভিভাবকেরাও শিশু হয়ে গিয়েছিলেন, বাচ্চাদের সঙ্গে মেতে উঠেছিলেন খেলায়।

দুপুর ১টা পর্যন্ত শিশুরা নেচে গেয়ে মুখর করে তোলে মেলা প্রাঙ্গণ।

শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা উপলক্ষে শিশুরা বাবা-মায়ের সঙ্গে মেলায় প্রবেশ পথে অপেক্ষা করতে থাকে সকাল ৮টা থেকে। সকাল ৯টার আগেই মেলা প্রাঙ্গণ পরিণত হয় শিশুদের মিলনমেলায়। মেলায় ঢুকে শিশুরা বাঁধভাঙা উল্লাসে মেতে ওঠে।

যত দিন যাচ্ছে, প্রকৃতিতে বসন্তের বার্তা তত স্পষ্ট হচ্ছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছে গাছে ফুলের গন্ধে প্রকৃতিতে এখন ভালো লাগার অন্য রকম এক আবহ। অমর একুশে গ্রন্থমেলার পরিচ্ছন্ন-পরিপাটি পরিবেশ সেই আবহকে যেন আরো মুখর করে তুলেছে।

ছুটির দিন প্রায় সব কটি প্রকাশনা সংস্থার স্টলের সামনে পাঠক, দর্শনার্থীর উপস্থিতি চোখে পড়ে। শিশুদের পাশাপাশি কিশোর-কিশোরীদেরও উপস্থিতি ছিল বেশ জমজমাট। এদের সবাই প্রায় স্কুল, কলেজ পড়ুয়া।

ধ্রুব, সিয়াম, রবি, জাবিন, জুয়েল, মুক্তা, সারমিন, সাহেলা দল বেঁধে বইমেলায় এসেছে। ওদের সবার বয়স ১৫ থেকে ১৬ বছর। এদের মধ্যে জাবিন ‘এ জার্নি বাই মিরাক্কেল’ বইটি কিনেছে। হাত খরচের জন্য বাবা-মায়ের দেওয়া অর্থ বাঁচিয়ে তার এ বই কেনা।

সাহেলা বলে, ‘আমি এবারই প্রথম মেলায় এসেছি। হুমায়ূন আহমেদ, অধ্যাপক জাফর ইকবাল স্যার, আনিসুল হকের লেখা বই আমার খুব পছন্দ। কিছু ক্যাটালগ সংগ্রহ করেছি। আরেকদিন আব্বুর সঙ্গে আসব। সেদিন পছন্দের বইগুলো কিনব।’

x

Check Also

গুপ্তধন উদ্ধার কাজ সাময়িক স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর মিরপুর মডেল থানা এলাকার যে বাড়িতে গুপ্তধন সন্ধানে খনন কাজ শুরু হয়েছিল তা সাময়িক স্থগিত রাখা হয়েছে। ঢাকা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ারুজ্জামান জানিয়েছেন, আগামীকাল রোববার পুনরায় অনুসন্ধান শুরু হবে। শনিবার সকাল ১০টা ...

খালেদার সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে স্বজনরা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে গেছেন তার পাঁচ স্বজন। শনিবার বিকেল পৌনে ৫টায় রাজধানীর নাজিম উদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারে প্রবেশ করেন তারা। স্বজনদের মধ্যে রয়েছেন- খালেদা জিয়ার বোন, ...

ভারতকে নিয়ে কাদেরের বক্তব্য প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে : ফখরুল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : আগামী নির্বাচনে ‘ভারতের কোনো হস্তক্ষেপ থাকবে না’ বলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যে অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে বলে মনে করছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার এই বক্তব্য আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে ...

শিরোনামঃ