পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > অপরাধ > অমানুষ নিমার আলী দীর্ঘদিন মা-মেয়েকে ধর্ষণ করে ২৫টি ভিডিও বাজারে ছাড়ে

অমানুষ নিমার আলী দীর্ঘদিন মা-মেয়েকে ধর্ষণ করে ২৫টি ভিডিও বাজারে ছাড়ে

খুব সুকৌশলেই দরিদ্রতার সুযোগ নিয়ে মা ও মেয়ের সঙ্গে অবৈধ মেলামেশা শুরু করে সিলেটের ধর্ষক নিমার আলী। এতে মোটেও অনুতপ্ত নন তিনি। একদিন নয়, একাধিক দিন সে তাদের ধর্ষণ করে। আর ধর্ষণের দৃশ্য সে নিজেই মোবাইল ফোনে ক্যামেরাবন্দি করে রাখে।

বিষয়টি ধর্ষিতার স্বামী প্রায় দেড় মাস আগেই জেনেছিলেন। প্রথমে জেনেছিলেন তার মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নিমার আলী অবৈধ মেলামেশা করেছে। কিন্তু পরে ভাইরাল হওয়া ভিডিওর মাধ্যমে জানতে পারেন তার স্ত্রীর সঙ্গে নিমারের অবৈধ সম্পর্ক ছিল। কিন্তু তার আগে তিনি জৈন্তাপুরের ডেমা গ্রামের লোকজনের কাছে ছুটে গিয়েছিলেন। নিমারের বিরুদ্ধে দিয়েছিলেন বিচারও। গ্রামের লোকজন বিষয়টি দেখে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিমার আলীই গ্রাম্য সালিশে আসেনি। এ কারণে শেষ পর্যন্ত গ্রামের মানুষ ব্যর্থ হয়।

এলাকার লোকজন জানিয়েছেন, প্রথমে তারা জানতে পারেন নিমার আলী বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মেয়েকে ধর্ষণ করেছে। এ বিষয়টি নিয়ে তারা নিমারের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন। তারা চেয়েছিলেন উপযুক্ত মোহরানা দিয়ে নিমারের সঙ্গে ওই মেয়ের বিয়ে দিয়ে দিতে। কিন্তু নিমার আলী সেটি গ্রহণ করেনি।

দরবস্ত ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান কামাল আহমদ জানিয়েছেন, ওই পিতা তার মেয়েকে নিয়ে আমাদের কাছে এসেছিলেন। মেয়ে তাদের জানিয়েছে, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নিমার তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে। এ কারণে উপযুক্ত মোহরানা দিয়ে নিমারের সঙ্গে ওই মেয়ের বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু নিমার সেটি মানেনি।

তিনি বলেন, প্রথমে ওই ব্যক্তি তার মেয়ের কথা বলেছিলেন। ওই সময় তিনি স্ত্রীর কথা বলেননি। গত প্রায় একমাস ধরে এই বিষয়টি নিয়ে এলাকায় কথাবার্তা হচ্ছিল বলে জানান তিনি।

ওদিকে বর্তমান চেয়ারম্যান বাহারুল আলম বাহার জানিয়েছেন, তারা গত ৭ই মে থেকে ভিডিও ভাইরালের কথা জেনেছেন। ওই দিন ধরে মোবাইলে মোবাইলে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে। তারা প্রথমে বিষয়টি বিশ্বাস করেননি। ভিডিওটি ভাইরাল করা হচ্ছে সব চেয়ে বড় অপরাধ। সেটি কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এখন তারা সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন হতে যাচ্ছে। এ কারণে এখনই তাদের পাশে সবাইকে দাঁড়ানো উচিত বলে মনে করেন তিনি।

এদিকে ধর্ষিত হওয়া মা ও মেয়ের জবানবন্দি গ্রহণের জন্য শুক্রবারই তাদের সিলেটের আদালতে পাঠায় পুলিশ। এরপর মা ও মেয়ে দুজনই আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। এসব জবানবন্দিতে তারা দুজনই ঘটনার জন্য দায়ী করেন নিমার আলীকে। এরপর আদালতের নির্দেশে তাদের দুজনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওসিসিতে ভর্তি করা হয়।

পুলিশ জানায়, গতকাল মা ও মেয়ে দুজনেরই ডাক্তারি পরীক্ষা শেষ হয়েছে। জৈন্তাপুর থানার ওসি সফিউল কবির জানান, মেয়েটির বয়স বেশি নয়। ১৫ কিংবা ১৬ হবে। মেয়েটিকে নিমার বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেছে। অনেকটা জোরপূর্বকভাবে মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়। আর মাও জানিয়েছে, তাকে ফাঁদে ফেলে নিমার একাধিক দিন ধর্ষণ করেছে। আর ধর্ষণের সময় মোবাইল ফোনে ভিডিও ফুটেজ তোলে। তারা পরিস্থিতির শিকার বলে পুলিশের কাছে জানিয়েছে।

x

Check Also

প্রশ্ন ফাঁসকারী জঙ্গিদের মতো জঘন্য : র‌্যাব প্রধান

নিজস্ব প্রতিবেদক : পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসকারীদের জঙ্গিদের মতো নিশ্চিহ্ন করা হবে। তারা জঘন্য, এক ধরনের সন্ত্রাসীও বলে মনে করেন র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। সোমবার দুপুরে র‌্যাব সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিমত ব্যক্ত ...

চারঘাটে নেশার টাকা না পেয়ে পিতা মাতাকে মারপিট ,প্রতিবাদ করায় প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা ,আহত-৫

চারঘাট প্রতিনিধি: রাজশাহীর চারঘাটে নেশার টাকা না পাওয়ায় পিতা মাতাকে মারপিট করে আহত করেছে মাদকাশক্ত যুবক মকছেদ আলী (৩০)। এ সময় প্রতিবাদ করলে হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে খুন করে প্রতিবেশী মৃতঃ সাইফুল ইসলামের স্ত্রী মর্জিনা বেগম ...

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে গলা কেটে হত্যা

ফেনী সংবাদদাতা : ফেনীর দাগনভূইয়া উপজেলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত যুবকের নাম ফখরুল উদ্দিন চৌধুরী (৩০)। শনিবার সকালে উপজেলার মাতুভূইয়া বাজার সংলগ্ন মাঠ থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ...

শিরোনামঃ