পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > নির্বাচন > ডিএনসিসি উপ-নির্বাচন : আ.লীগের গুডবুকে আতিকুল-আজাদ

ডিএনসিসি উপ-নির্বাচন : আ.লীগের গুডবুকে আতিকুল-আজাদ

আইনি জটিলতা কেটে যাওয়ার পর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীর মনোনয়ন নিয়ে তোড়জোড় শুরু হয়েছে আওয়ামী লীগে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ডিএনসিসির উপ-নির্বাচনে বিজয়ের বার্তা দিতে চায় আওয়ামী লীগ। এক্ষেত্রে ‘উইনেবল’ প্রার্থীকেই মনোনয়ন দেওয়ার পক্ষে ক্ষমতাসীন দলের নীতিনির্ধারকরা।

আগ্রহী প্রার্থীদের মধ্যে বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) প্রাক্তন সভাপতি আতিকুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ও হামীম গ্রুপের মালিক এ কে আজাদকে গুডবুকে রেখেছেন আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকরা।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানায়, ডিএনসিসির উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে প্রার্থী চূড়ান্ত করে রাখার কথা বলেছেন। এ নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে কানাঘুষা শুরু হয়েছে।

এ ব্যাপারে দলীয় নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, ডিএনসিসির মেয়র পদে বিজিএমইএর প্রাক্তন সভাপতি আতিকুল ইসলামই আওয়ামী লীগের ফার্স্ট চয়েস। দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফ্রান্স সফরে যাওয়ার আগে এমন ইঙ্গিত দিয়ে গেছেন। তিনি আমাদের জানিয়েছেন, প্রার্থী তিনি ঠিক করে রেখেছেন। এ লক্ষ্যে গতকাল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেন। সেখানে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগও ভেতরে ভেতরে নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করেছে। এ লক্ষ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগে সাংগঠনিক তৎপরতা বাড়াতে বিশেষ নির্দেশনা রয়েছে। একই সঙ্গে নেতাদের মধ্যে ঐক্য প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতাভূক্ত থানা ও ওয়ার্ডগুলোতে নতুন সদস্য সংগ্রহ এবং সদস্য নবায়ন কার্যক্রমকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে মহানগর উত্তর এলাকার কয়েকজন সংসদ সদস্যকে ধানমন্ডিতে দলীয় সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়েছেন ওবায়দুল কাদের। চলতি মাসেই উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত সংসদীয় আসনের সংসদ সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করে একটি মতবিনিময় সভা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ওই সভায় কেন্দ্রীয়ভাবে একটি সমন্বয় দল গঠনের পাশাপাশি থানা-ওয়ার্ড-পাড়া-মহল্লায় নির্বাচন সমন্বয় ও তদারকির কমিটি গঠন করা হবে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নেতারা বলেন, আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক দল হিসেবে সবসময় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার পক্ষে। আমাদের কাছে প্রতিটি নির্বাচনই গুরুত্বপূর্ণ। আর জাতীয় নির্বাচন যেহেতু খুব বেশি দূরে নয়, তাই এ নির্বাচন খুব স্বাভাবিকভাবেই আমাদের কাছে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। আমরা উপ-নির্বাচনে জনপ্রিয়, গ্রহণযোগ্য এবং বিজয়যোগ্য প্রার্থীই দেব। নেত্রীর সিদ্ধান্তক্রমে দলীয় ফোরামে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। নেত্রী ইতোমধ্যে একজনের ব্যাপারে ইঙ্গিত দিয়েছেন।

তবে এ ব্যাপারে নেতারা জানান, আনুষ্ঠানিকভাবে কারো নাম ঘোষণা না দেওয়ার আগ পর্যন্ত অনেকের নামই সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় রয়েছে। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সাংগঠনিক সম্পাদক, ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) প্রাক্তন সভাপতি ও ঢাকা-৯ আসনের এমপি সাবের হোসেন চৌধুরী, এফবিসিসিআইর প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ও হামীম গ্রুপের মালিক এ কে আজাদ, আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, প্রধানমন্ত্রীর প্রাক্তন প্রটোকল অফিসার ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা আলাউদ্দিন নাছিম, প্রাক্তন এমপি ডা. এইচ বি এম ইকবাল, অভিনেত্রী ও প্রাক্তন এমপি সারাহ বেগম কবরী।

দলীয় সূত্রে আরো জানায়, আতিকুল ইসলাম প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে খোদ আওয়ামী লীগ সভাপতির গুডবুকে রয়েছেন। এছাড়া আওয়ামী ঘরানার কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যবসায়ী আতিকুল ইসলামের পক্ষে জোর তদবির চালাচ্ছেন। অপরদিকে আরেক ব্যবসায়ী এ কে আজাদও একজন দক্ষ ব্যবসায়ী ও সংগঠক হিসেবে দলের একটি মহলের পছন্দ।

এদিকে গত রোববার নির্বাচন কমিশন তাদের ১৫তম সভা শেষে ঘোষণা দেয় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) উপ-নির্বাচন নিয়ে কোনো জটিলতা নেই। জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে এর তফসিল ঘোষণা হবে এবং ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে ভোট গ্রহণ করা হবে।

রোববার আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে বৈঠক শেষে নির্বাচন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলাল উদ্দীন আহমেদ এ কথা বলেন।

হেলাল উদ্দীন আহমেদ বলেন, সভায় এ নির্বাচন নিয়ে পর্যালোচনা হয়েছে। কমিশন মনে করছে, এ নির্বাচন অনুষ্ঠানে কোনো আইনি জটিলতা নেই। যার কারণে কমিশন এ নির্বাচন অনুষ্ঠানের তফসিলের নির্দেশনা দিয়েছে।

গত ৩০ নভেম্বর ডিএনসিসির মেয়র আনিসুল হক মারা যাওয়ার পর ১ ডিসেম্বর মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করে স্থানীয় সরকার বিভাগ। সেক্ষেত্রে ৯০ দিনের মধ্যে অর্থাৎ ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এই উপ-নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

ডিএনসিসির মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের উইনেবল প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হবে বলে বিভিন্ন সময়ে মন্তব্য করেছেন। সোমবার সন্ধ্যায় মিরপুর-১০ এর সেনপাড়া পর্বতায় ব্যাপ্টিস্ট মিশন ইন্টিগ্রেটেড স্কুলে আন্তঃমান্ডলিক বড়দিন উদযাপন কমিটির এক অনুষ্ঠানেও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘ইসি সম্ভাব্য শিডিউল খুব শিগগিরই জানাবে। এক্ষেত্রে আমাদের দলীয়, সমর্থক প্রার্থী অনেক। আনিসুল হকও ছিলেন তাই। তার মেয়র নির্বাচন করা, বিজয়ী হওয়া ছিল একটা সারপ্রাইজ। তিনি তার যোগ্যতা প্রমাণ করেছিলেন। আমরা ডিএনসিসি নির্বাচনে যোগ্য প্রার্থী দেব। নেত্রীর এবং দলের একটি জরিপ চলছে। যে সবচেয়ে বেশি গ্রহণযোগ্য, যে আনিসুল হকের অসমাপ্ত কাজগুলো সম্পন্ন করতে পারবে, তাকে নমিনেশন দেওয়া হবে।

x

Check Also

সংরক্ষিত নারী আসনের তফসিল ১৭ ফেব্রুয়ারি

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের তফসিল আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। সোমবার বিকেলে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য ...

ঢাকা-১ আসনে সালমাকে সমর্থন বিএনপির

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : ঢাকা-১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সালমা ইসলামকে সমর্থন দিয়েছে বিএনপি। সালমা ইসলাম জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল তার স্বামী। এই আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন ...

ফারুকের সমর্থনে সরে দাঁড়ালেন এরশাদ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : মহাজোটের প্রার্থী আকবর হোসেন খান পাঠান (চিত্রনায়ক ফারুক) এর সমর্থনে ঢাকা-১৭ আসনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে প্রাক্তন ...

শিরোনামঃ