পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > সরকার > ‘স্বার্থান্বেষীদের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি’

‘স্বার্থান্বেষীদের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি’

ডেস্ক রিপোর্ট :

দুর্নীতির অভিযোগ তুলে পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন বন্ধ করা ‘ষড়যন্ত্র’ ছিল বলে দাবি করেছেন প্রাক্তন যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন।

শনিবার ফেসবুকে এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘বিশ্বব্যাংকের আনা দুর্নীতির অভিযোগটি পদ্মা সেতু ও আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ছিল।’

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘কানাডার আদালতের এই রায় প্রমাণ করে, পদ্মা সেতু নিয়ে আমাকে জড়িয়ে বিশ্বব্যাংক যে অভিযোগ করেছিল তা সর্বৈব মিথ্যা। বাংলাদেশে তৎকালীন বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধি গোল্ড স্টেইন এবং বাংলাদেশের পত্রিকার অসত্য রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে বিশ্বব্যাংক যে কাল্পনিক অভিযোগ আমার বিরুদ্ধে দাঁড় করিয়েছিল, তা শুধু মিথ্যা নয়, ষড়যন্ত্রমূলক। আমি বিশ্বব্যাংক এবং বাংলাদেশি স্বার্থন্বেষী মহলের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি। এ ষড়যন্ত্র আমার দীর্ঘদিনের অর্জিত সুনাম, মর্যাদা, সততা ও আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের পথকে বাধাগ্রস্ত করেছে। আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার অপচেষ্টা করা হয়েছে।’

বিবৃতিতে সৈয়দ আবুল হোসেন বিশ্বব্যাংকের তৎকালীন প্রেসিডেন্টের স্বীকারোক্তির কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘বিশ্বব্যাংকের তৎকালীন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আমার চীনের এক আন্তর্জাতিক ফোরামে সাক্ষাৎ হয়। তিনি তখন বলেছিলেন, আমি বুঝতে পারছি, পদ্মা সেতু এবং আপনি ষড়যন্ত্রের শিকার। বিশ্বব্যাংকের কর্মকর্তারা তখন বাংলাদেশের গণমাধ্যম ও বিশিষ্ট কতিপয় লোকের কথায় প্রভাবিত হয়েছেন। এ জন্য আমি অনুতপ্ত।’

আবুল হোসেন তার বিবৃতিতে আরো বলেন, ‘আমার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান সাকো-কে মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে জড়ানো হয়েছে। পরামর্শক নিয়োগে ৩৭ মিলিয়ন ডলার দর প্রস্তাবের ৩৫ মিলিয়ন ঘুষ লেন-দেনের অভিযোগ করা হয়েছে। টকশোতে এ বিষয় নিয়ে বিশিষ্টজনরা রাতের ঘুম হারাম করে আলোচনায় অংশ নেন, তা ছিল উদ্দেশ্যমূলক। বাংলাদেশে এসে বিশ্বব্যাংকের আইন উপদেষ্টা ওকাম্পো যে আইনবিরোধী লম্প-ঝম্প দেখালেন, সরকার, পদ্মা সেতু এবং আমার বিরুদ্ধে যে মিথ্যাচার করলেন, তা ষড়যন্ত্রের ইতিহাসে কালো অধ্যায় হিসেবে থাকবে।’

বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, ‘পদ্মা সেতু নির্মাণে মিথ্যা অভিযোগে আমাকে ও আমার পরিবারকে হেনস্তা করা হয়েছে। সরকারের সচিব পর্যযায়ের কর্মকর্তাকে বিনা দোষে জেল খাটতে হয়েছে। এই ষড়যন্ত্রে পদ্মা সেতু নির্মাণের স্বার্থে আমাকে মন্ত্রিত্ব ছাড়তে হয়েছে। আমাকে জনগণের কাছে ছোট হতে হয়েছে। কানাডায় আমার জামাতার ব্যাংক হিসাব চেক করা হয়েছে। ঘনিষ্ঠ আত্মীয়-স্বজনসহ আমার সব ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তদন্ত করা হয়েছে।’

গণমাধ্যমের কাছে জবাবদিহিতা আশা করে সৈয়দ আবুল হোসেন বলেন, ‘যেসব মিডিয়ায় মিথ্যা রিপোর্ট, অতিশয় বাড়াবাড়ি লেখা, কার্টুন প্রকাশ, সম্পাদকীয়, উপসম্পাদকীয় লেখায় প্রভাবিত হয়ে বিশ্বব্যাংক দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগে আমাকে অভিযুক্ত করা হলো, আমার মর্যাদা ক্ষুণ্ন করা হলো, তাদের আজকের জবাব কী?’

সৈয়দ আবুল হোসেন নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, ‘পত্রিকাগুলো শুধু পদ্মা সেতু নিয়ে মিথ্যা রিপোর্ট করেছে তা নয়, আমার মন্ত্রিত্বকালীন কাজ নিয়ে, সড়ক দুর্ঘটনার সঙ্গে আমাকে জড়িয়ে পদত্যাগ চেয়েছে। আমার ব্যক্তিগত পাসপোর্ট নিয়ে, আমার গ্রামের বাড়ি নিয়ে, যোগাযোগমন্ত্রীর গাড়ি কেনা নিয়ে, সড়ক নির্মাণের সারসংক্ষেপ নিয়ে, বিএনপির শ্বেতপত্রের অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণের বিষয় নিয়ে, আওয়ামী লীগ থেকে আমি পদত্যাগ করেছি, এই মর্মে আমার স্বাক্ষর জাল করে একটি চিঠি পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়, যা ছিল উদ্দেশ্যমূলক।’

সৈয়দ আবুল হোসেন নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, ‘আমি জীবনে সৎ থেকে ব্যবসা করে উপার্জন করেছি, জনগণের জন্য ব্যয় করেছি।’

তিনি বিবৃতিতে দাবি করেন, ‘বিশ্বব্যাংকের চাপে পদ্মা সেতুতে ঘুষ লেনদেনের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ২০১২ সালের ডিসেম্বরে মামলা করে দুদক এবং প্রায় দুই বছর তদন্ত শেষে অভিযোগের কোনো সত্যতা খুঁজে পায়নি। পদ্মা সেতু নির্মাণে আমি দ্রুততার সঙ্গে কাজ করেছিলাম। অল্প সময়ের মধ্যে বিশ্বব্যাংকের অনুমোদন নিয়ে সব আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেছিলাম। আমার সময়ে প্রণীত ডিজাইন ও দরদাতা নির্বাচন প্রক্রিয়াকে অনুমোদন দিয়ে বর্তমান পদ্মা সেতু নির্মিত হচ্ছে।’

x

Check Also

‘পাস্তুরিত দুধ নিয়ে কারসাজি আছে কি না দেখা উচিত’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : পাস্তুরিত দুধের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলে নেতিবাচক ধারণা সৃষ্টির ক্ষেত্রে দেশের দুধ আমদানিকারকদের কোনো কারসাজি আছে কি না, তা খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী ...

নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক ২১ জানুয়ারি

সচিবালয় প্রতিবেদক : নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক আগামী সোমবার (২১ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মন্ত্রিসভা ও রিপোর্ট অনুবিভাগ) মো. রেজাউল আহসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। জানা গেছে, নতুন সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভা বৈঠকটি ...

‘বাংলাদেশের উন্নয়ন কেউ থামাতে পারবে না’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রা শুরু করেছে এবং এই উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না। বুধবার বিকেলে রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের নিজস্ব জায়গায় এবং নিজস্ব অর্থে নবনির্মিত চ্যান্সেরি ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে প্রদত্ত ...

শিরোনামঃ