পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > রায়গঞ্জে হারিয়ে যাচ্ছে ভূমিদাতা রুপা প্রামানিকের স্মৃতি

রায়গঞ্জে হারিয়ে যাচ্ছে ভূমিদাতা রুপা প্রামানিকের স্মৃতি

পাপ্পু কুমার দে, সিরাজগঞ্জ: দেশ, জাতি তথা এলাকার সার্বিক উন্নয়নে ও জন কল্যানার্থে যুগে যুগে কিছুসংখ্যক মহিয়ষী মানুষের আগমন ঘটে পৃথিবীতে। যারা নিজের আরাম আয়েশ, সুখ-স¦াচ্ছন্দ, বিত্ত-বৈভব, বিসর্জন দিয়ে নানামূখী জন হিতৈষী কর্ম যজ্ঞ চালিয়ে যান নিঃশব্দে, নিঃস্বার্র্থে, অকাতরে। তাঁরা কি শুধুই মানব? মানব নয় মহামানব। সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলা সদর এলাকার মরহুম শেখ রূপা প্রামানিক এমনই একজন ক্ষণজন্মা মহামানব।

যিনি নিজের মেধা, শ্রম ও সম্পদ অকাতরে জনকল্যানমূখী সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে দান করে মা-বাবার দেয়া নাম রূপাকে পরিণত করে গেছেন হীরায়। মরহুম শেখ রুপা প্রামানিক ১৮৭৭ সালে উপজেলার ধানগড়া ইউনিয়নে উপজেলা সদর রায়গঞ্জ গ্রামে সমভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জ¤্নগ্রহন করেন। স্বাধীনতা পরবর্তী ১৯৭৫ সালে ১৫ই আগষ্ট স¦পরিবারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডে ঘটনায় গভীর ভাবে শোকাহত রুপা প্রামানিক শয্যাসায়ী হয়ে পড়েন এবং পরবর্তী সেপ্টম্বরে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার এই দীর্ঘ জীবনে সরকারের নানামূখী সেবামূলক প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় নিজেকে উৎসর্গ করেন। তিনি স্বাধীনতা পরবর্তী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘোষিত ৫টি মৌলিক চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত খাদ্য, বস্ত্র বাসস্থান, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, নিজেকে উৎসর্গ করেন একজন সহযোদ্ধা হিসাবে।

তিনি ১৯৬৭ সালে ১ বিঘা জমির উপর রায়গঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় নামে একটি স্কুল স্থাপন করেন। যে বিদ্যালয়টি রায়গঞ্জ উপজেলা তথা সিরাজগঞ্জ জেলার মধ্যে একটি শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। এছাড়া নিজস্ব ১ বিঘার উপর স্থাপন করেন ৬নং ধানগড়া ইউনিয়ন পরিষদ ভবন। নিজস্ব জমির উপর প্রতিষ্ঠা করেন রায়গঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। স্বাধীনতা পরবর্তী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোড়গড়ায় পৌছে দেওয়ার লক্ষ্যে প্রতিটি থানায় সরকারি হাসপাতাল স্থাপনের ঘোষণা শুনে জ্বল জ্বল করে উঠেন মরহুম রুপা প্রামানিক। হাসপাতালটি নিজ এলাকা রায়গঞ্জে স্থাপনের লক্ষ্যে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী কে সঙ্গে নিয়ে, স্থানীয় সংসদ মরহুম রওশন-উল-হক মতিমিঞা সহ সরকারের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের নিকট দৌড়ঝাপ শুরু করেন। হাসপাতালটি স্থাপনের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ৭.৫ বিঘা জমি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নামে দান করেন নিঃশর্তে।

১৯৭৩ সালে জাতীয় চার নেতার একজন তথা উত্তর বঙ্গের কৃতি সন্তান শহীদ ক্যাপ্টেন এম.মনসুর আলী অনারম্ভর আয়োজনের মধ্যে দিয়ে হেলিকপ্টার যোগে রায়গঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রায়গঞ্জ থানা হাসপাতালের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেন। অত্র হাসপাতালটি ৫০শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রুপান্তরিত করা হয়েছে। এলাকায় কয়েক লক্ষ মানুষের স্বাস্থ্য সেবা দোড়গোড়ায় পৌছে দেওয়া সম্ভব হয়েছে। রায়গঞ্জ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, রায়গঞ্জ থানা ভবন, লাহোর কবর স্থানে দান করেন নিজস্ব জমি। মহিয়ষী এ দানবীর শেখ রুপা প্রামানিক বঙ্গবন্ধুকে হারানোর গভীর ক্ষত নিয়ে ১৯৭৫ সালে সেপ্টেম্বর মাসে ও হিজরী রমযান মাসে পরলোক গমন করেন। তিনি এলাকার ও জাতীয় উন্নয়নের লক্ষ্যে ভূমি দান করে গেছেন অকাতরে। নিজেকে পরিণত করে গেছেন রুপা থেকে হীরায়।

x

Check Also

সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরলেন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক

সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর মগবাজারের আদ্-দ্বীন হাসপাতাল থেকে তাকে বাসায় নেওয়া হয়। হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম আকাশ রাইজিংবিডিকে জানান, প্রবীণ ...

ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে: মনু

ভোট দেওয়া শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনের ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মো. কাজী মনিরুল ইসলাম মনু। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ঢাকা আইডিয়াল ...

‘সৌদি রি-এন্ট্রি ভিসার মেয়াদ ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ছে’

ঢাকায় সৌদি দূতাবাস ছুটিতে থাকা প্রবাসী কর্মীদের এক্সিট রি-এন্ট্রি ভিসার মেয়াদ আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। এজন্য তাদেরকে ৬ হাজার ৫০০ টাকা করে দিতে হবে। ...

শিরোনামঃ