পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর দায়িত্ব মিয়ানমারের’

‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর দায়িত্ব মিয়ানমারের’

নিজস্ব প্রতিবেদক : মিয়ানমারের রাখাইনে হত্যা নির্যাতনের মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরুর দায়িত্ব মিয়ানমার সরকারের বলে উল্লেখ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

শনিবার ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন সফররত যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইমন হেন্‌শ। অন্যদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র হিদার নওয়ার্ট ও ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট এসময় উপস্থিত ছিলেন।

আমেরিকান ক্লাবে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের জনসংখ্যা, উদ্বাস্তু ও অভিবাসনবিষয়ক ব্যুরোর এই সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের প্রক্রিয়া শুরু করার দায়-দায়িত্ব মিয়ানমার সরকারের। রোহিঙ্গারা যেন স্বেচ্ছায় ফিরতে পারে সেজন্য নিরাপদ ও সুরক্ষিত এলাকা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে মিয়ানমারকেই।’

পরিস্থিতি অত্যন্ত মর্মান্তিক, উল্লেখ করে হেন্‌শ বলেন, মিয়ানমার সফর আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। এ সফর থেকে আমাদের কাছে পরিষ্কার হয়েছে যে, বিষয়টি অত্যন্ত জটিল। রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারে রাজনৈতিক পুনর্গঠন প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

ওয়াশিংটনে আলোচনার শীর্ষে রোহিঙ্গা ইস্যু, উল্লেখ করে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র হিদার নওয়ার্ট বলেন, রোহিঙ্গা সংকটে যুক্তরাষ্ট্র খুবই উদ্বিগ্ন। এজন্য মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন আগামী ১৫ নভেম্বর মিয়ানমার সফরে যাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, রাখাইনে নির্বিচারে হত্যা, নির্যাতন, জ্বালাও-পোড়াওয়ের মধ্যে গত ২৫ আগস্ট থেকে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে। এর আগে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনের কারণে দীর্ঘদিন ধরে আরো প্রায় ৪ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছে।

বাংলাদেশ সরকার বরাবরই বলে আসছে, এ সমস্যার পেছনে বাংলাদেশের কোনো ভূমিকা নেই; সমস্যার উৎস ও কেন্দ্রবিন্দু মিয়ানমারে। আর এর সমাধানও সেখানে নিহিত। মানবিক কারণে বাংলাদেশ আপাতত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিলেও তাদের অবশ্যই মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে হবে।

আন্তর্জাতিক মহলে সমালোচনার মধ্যে মিয়ানমার ১৯৯২ সালের প্রত্যাবাসন চুক্তির আওতায় দ্বিপক্ষীয় ব্যবস্থাপনায় রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার কথা বলেছে। তবে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রত্যাবাসনে জাতিসংঘকে যুক্ত করাসহ কয়েকটি প্রস্তাব রাখা হয়।

কিন্তু বাংলাদেশের প্রস্তাবের কোনো জবাব না দিয়ে গত ৩১ অক্টোবর মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চির দপ্তরের মহাপরিচালক জ হতে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে দেরির জন্য উল্টো বাংলাদেশকে দায়ী করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন মিয়ানমারের সেনাপ্রধানকে ফোন করে রাখাইনে সহিংসতা বন্ধের পাশাপাশি পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন নিশ্চিতে সহযোগিতা চাওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদল এই সফরে এসেছে।

হেন্‌শর নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলটি প্রথমে মিয়ানমারে এবং এরপর বাংলাদেশের কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনের পর ঢাকায় এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

x

Check Also

সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরলেন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক

সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর মগবাজারের আদ্-দ্বীন হাসপাতাল থেকে তাকে বাসায় নেওয়া হয়। হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম আকাশ রাইজিংবিডিকে জানান, প্রবীণ ...

ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে: মনু

ভোট দেওয়া শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনের ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মো. কাজী মনিরুল ইসলাম মনু। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ঢাকা আইডিয়াল ...

‘সৌদি রি-এন্ট্রি ভিসার মেয়াদ ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ছে’

ঢাকায় সৌদি দূতাবাস ছুটিতে থাকা প্রবাসী কর্মীদের এক্সিট রি-এন্ট্রি ভিসার মেয়াদ আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। এজন্য তাদেরকে ৬ হাজার ৫০০ টাকা করে দিতে হবে। ...

শিরোনামঃ