পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > আমাদের রাজশাহী > নয় বছরে রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীর ৫ সফর

নয় বছরে রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীর ৫ সফর

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাজশাহী সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুপুর ২টার দিকে রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় ভাষণ দেবেন তিনি। টানা দুই মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে রাজশাহীতে এটি পঞ্চম সফর সরকার প্রধান শেখ হাসিনার।

২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর শেখ হাসিনা প্রথম রাজশাহী সফরে আসেন ২০১১ সালের ২৪ নভেম্বর। ওই দিন শেখ হাসিনা রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় ভাষণ দেন। প্রায় সাত বছর পর আজ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই মাঠে উপস্থিত হবেন। এই মাঠে নগর ও জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেবেন শেখ হাসিনা।

এর ৫ মাস আগে গত বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর রাজশাহীর কাটাখালী চিনিকল মাঠে পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় যোগ দেন। এছাড়াও ২০১৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর রাজশাহী সফরকালে জেলার বাগমারায় এবং ২০১৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি চারঘাটে আওয়ামী লীগের জনসভায় যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর প্রথম রাজশাহী সফরে আসেন ২০১১ সালে ২৪ নভেম্বর। ওই দিন মাদ্রাসা মাঠের জনসভার ভাষণে প্রধানমন্ত্রী রাজশাহীবাসীকে তিনটি প্রতিশ্রুতি দিয়ে যান। এগুলো হলো- রাজশাহীতে মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, হাইটেক পার্ক নির্মাণ ও পাইপ লাইনে গ্যাস সরবরাহ। প্রধানমন্ত্রীর ওই তিনটি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়েছে।’

লিটন বলেন, ‘প্রতিশ্রুতি দেয়ার এক বছরের মধ্যে রাজশাহীতে গ্যাস এসেছে। গত বছর উপাচার্য নিয়োগের মাধ্যমে রাজশাহী মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এবারের সফরকালে প্রধানমন্ত্রী এই মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করবেন। এছাড়াও গত বছর রাজশাহীতে হাইটেক পার্ক নির্মাণের কাজও শুরু হয়।’

খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘এবারের রাজশাহী সফরকালে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে রাজশাহীতে কৃষি বিশ^বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাসহ নয়টি উন্নয়ন ভাবনা পেশ করা হবে। এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো, রাজশাহীতে বালক ও বালিকাদের দুইটি স্কুল সরকারি করা, অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, প্রস্তাবিত চামড়া শিল্প রাজশাহীতে স্থাপন, বিমান বন্দরকে আর্ন্তজাতিক মানে উন্নিত করা। আমরা আশা করছি রাজশাহীবাসীর এসব প্রাণের দাবি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী আশ্বাস পাওয়া যাবে।’

লিটন বলেন, ‘এবার রাজশাহী সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ কাজ ও মহানগর পুলিশ সম্প্রসারণ করে নতুন আটটি থানাসহ ৩১টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এর মধ্যে ২৫টি উদ্বোধন ও ছয়টি ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন।’

এদিকে, রাজশাহী সফরকালে স্থানীয় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে নয়টি উন্নয়ন ভাবনা ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর কাছে সামাজিক সংগঠন রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে ১৭টি এবং ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে চেম্বার নেতৃবৃন্দ ১১ দাবি তুলে ধরা হবে।

এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো- কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, একটি বালক ও একটি বালিকা সরকারি বিদ্যালয় স্থাপন, অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, প্রস্তাবিত চামড়া শিল্প নগরী রাজশাহীতে স্থাপন, রাজশাহী বিমান বন্দরকে আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরে উন্নিত করা, রাজশাহীতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসহ সাংস্কৃতিক বলয় নির্মাণ, রাজশাহী থেকে ঢাকা বিরতীহীন একটি ট্রেন চালু করা, রাজশাহী থেকে কলকাতা ট্রেন চালু এবং রাজশাহী হতে নাটোরের আব্দুলপুর পর্যন্ত রেল লাইন ডুয়েল গেজে রুপান্তর করা, রাজশাহীর তিন হাজার শিল্পে গ্যাস সরবরাহ, যমুনায় রেল সেতু প্রকল্প দ্রুত বাস্তাবায়ন এবং রাজশাহী অঞ্চলকে মরু ভূমির হাত থেকে রক্ষা করতে ভূ-উপরস্থ পানি সংরক্ষণের ব্যবস্থা।

রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান বলেন, তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে ১৭ দফা দাবি পেশ করবেন। যা বাস্তাবায়নের উদ্যোগ নিলে অবহেলিত এ অঞ্চলের উন্নয়ন হবে এবং মরু ভূমি হওয়ার হাত থেকে এ অঞ্চল রক্ষা পাবে।

রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাস্টির সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি বলেন, রাজশাহী অঞ্চলে তিন হাজার ভারি, মাঝাড়ি ও ক্ষুদ্র শিল্পে গ্যাস সংযোগ, যমুনায় রেল সেতু প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়ন ও শিল্প কলকারখানা স্থাপনে ঋণসুবিধাসহ ১১ দফা দাবি প্রধানমন্ত্রীর কাছে তারা পেশ করবেন।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত রাজশাহী। শেখ হাসিনার এ সফর ঘিরে রাজশাহী ছেয়ে গেছে পোস্টার, ফেস্টুন, ব্যানার আর রাস্তার উপর বিশাল বিশাল তোরণে। রাজশাহী আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে সাজ সাজ রব। নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ।

প্রায় ৫ লাখ মানুষের সমাগম ঘটিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এই জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিনত করার টার্গেট রয়েছে আওয়ামী লীগের। মাদ্রাসা মাঠ ছাড়াও আশাপাশের এলাকাতেও জনসভায় আগতদের অবস্থান করতে পারেন এ জন্য সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

x

Check Also

সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরলেন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক

সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর মগবাজারের আদ্-দ্বীন হাসপাতাল থেকে তাকে বাসায় নেওয়া হয়। হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম আকাশ রাইজিংবিডিকে জানান, প্রবীণ ...

ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে: মনু

ভোট দেওয়া শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনের ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মো. কাজী মনিরুল ইসলাম মনু। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ঢাকা আইডিয়াল ...

‘সৌদি রি-এন্ট্রি ভিসার মেয়াদ ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ছে’

ঢাকায় সৌদি দূতাবাস ছুটিতে থাকা প্রবাসী কর্মীদের এক্সিট রি-এন্ট্রি ভিসার মেয়াদ আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। এজন্য তাদেরকে ৬ হাজার ৫০০ টাকা করে দিতে হবে। ...

শিরোনামঃ