পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > রাজনীতি > বঙ্গবন্ধু বিশ্বমানবতার পথপ্রদর্শক : মতিয়া চৌধুরী

বঙ্গবন্ধু বিশ্বমানবতার পথপ্রদর্শক : মতিয়া চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানব ইতিহাসের অন্যতম নিষ্ঠুর হত্যাযজ্ঞ হয় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট। এ হত্যাযজ্ঞের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে তার প্রিয় বাংলাদেশ কিংবা বাঙালি থেকে বিচ্ছিন্ন করতে পারেনি বরং দিনে দিনে বিশাল থেকে বিশালতর হয়ে তিনি বিশ্বমানবতার পথপ্রদর্শক হয়ে আছেন। ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার স্বপ্ন ও আদর্শের মৃত্যু ঘটাতে পারেনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে যুবলীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর ত্যাগ ও তিতিক্ষার দীর্ঘ সংগ্রামী জীবনাদর্শ বাঙালি জাতির অন্তরে প্রোথিত হয়ে আছে। আমরা জাতির পিতাকে হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করে তার স্বপ্ন সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় আত্মনিয়োগ করি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করে ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় আত্মনিয়োগ করি। দারিদ্র্য, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদমুক্ত, শান্তিপূর্ণ, সমৃদ্ধ, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে আমাদের অবশ্যই জয়ী হতে হবে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতার আদর্শের রাজনীতি করেন দেশ ও জনগণের জন্য। তিনি রাজনীতি করেন জাতির পিতার অসম্পূর্ণ কাজকে সম্পন্ন করতে। তিনি রাজনীতি করেন বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশ হিসেবে বিশ্বের বুকে স্থান করার জন্য। বাংলাদেশ আজ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে। বাংলাদেশ এখন স্যাটেলাইটের দেশ, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের ক্ষেত্র। আজ শেখ হাসিনার হাত ধরে ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল বইছে।

মতিয়া চৌধুরী আরো বলেন, ঘাতকরা শুধু ব্যক্তি বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে চায়নি তারা বাংলাদেশকে হত্যা করতে চেয়েছিল। স্বাধীনতাবিরোধী সেই ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ক্ষান্ত হননি, তারা চেয়েছিল বাংলাদেশ যেন সামনের দিকে এগিয়ে যেতে না পারে। তাই তারা বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। এসব ঘাতক ও স্বাধীনতাবিরোধী চক্রকে প্রতিহত করার জন্য যুবলীগের নেতাকর্মীদের সবসময় সচেষ্ট থাকতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, প্রধানমন্ত্রীর এপিএস অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর। প্রধান বক্তা ছিলেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদ।

x

Check Also

ধর্ষণের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ অবস্থান চান রওশন

ধর্ষণের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ অবস্থান দরকার বলে মনে করেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। বুধবার (০৭ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, দেশজুড়ে একের পর এক ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। সেই সঙ্গে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক ...

যুবলীগকে মাঠে থাকার নির্দেশ

ঢাকা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে যুবলীগকে মাঠে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন সংগঠনটির চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। রোববার (৪ অক্টোবর) বিকেলে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর নুর কমিউনিটি সেন্টারে যুবলীগ আয়োজিত জরুরি নির্বাচনী সভায় ...

‘আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড মেনে নেওয়া হবে না’

আন্দোলনের নামে কোনো ধরনের সন্ত্রাস সৃষ্টি, জণভোগান্তি এবং জণমালের ক্ষতি সরকার মেনে নেবে না বলে বিএন‌পিকে সতর্ক করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। রোববার (০৪ অক্টোবর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ত্রাণ ...

শিরোনামঃ