পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > রাজনীতি > মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আ.লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম

মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আ.লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে (ডিএনসিসি) উপনির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাশেমের কাছে তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন তিনি। দেশের প্রথম সারির স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে নিয়ে তিনি এই মনোনয়নপত্র জমা দেন।

মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের মনোনয়নপত্রে প্রস্তাবক পাঁচ জন হলেন, প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি আতিকুল ইসলামের বড় ভাই তাফাজ্জাল ইসলাম, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য এ কে এম রহমাতুল্লাহ, জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান, বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন ও এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন।

অন্যদিকে, আতিকুলের মনোনয়নপত্র সমর্থনকারীরা হলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, সিনিয়র সাংবাদিক দৈনিক জাগরণের সম্পাদক আবেদ খান, আতিকুল ইসলামের সহধর্মিণী ডাক্তার শায়লা সগুফতা ইসলাম ও প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের ছেলে নাভিদুল হক।

মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমি আচরণবিধি মেনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। আচরণবিধি যেন লঙ্ঘন না হয় সেদিকে খেয়াল রেখে বেশি নেতাকর্মী নিয়ে আসিনি।

এসময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের অসমাপ্ত কাজ শেষ করার প্রত্যয় পুনর্ব্যক্ত করেন তিনি।

ঢাকা জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আজ পর্যন্ত ২৫ জন মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এর মধ্যে ১৯ জন আগের তফসিলের সময়ই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন, বাকি ছয় জন নতুন করে তফসিল ঘোষণার পর মনোনয়নপত্র নিয়েছেন। এর মধ্যে কেবল একজনই জমা দিয়েছেন।’

আবুল কাসেম বলেন, মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসার সময় পাঁচ জনের বেশি লোক না নিয়ে আসার জন্য আমরা অনুরোধ করেছি। এ অনুরোধে সাড়া দিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম পাঁচ জন নিয়েই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এ জন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই।’

মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় আতিকুল ইসলামের সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর ফরাসউদ্দিন আহমেদ, এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, ঢাকা মেট্রোপলিটন চেম্বারের সভাপতি নিহাদ কবির, বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ও অন্যরা। তবে এসময় তার সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি।

x

Check Also

ধর্ষণের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ অবস্থান চান রওশন

ধর্ষণের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ অবস্থান দরকার বলে মনে করেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। বুধবার (০৭ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, দেশজুড়ে একের পর এক ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। সেই সঙ্গে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক ...

যুবলীগকে মাঠে থাকার নির্দেশ

ঢাকা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে যুবলীগকে মাঠে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন সংগঠনটির চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। রোববার (৪ অক্টোবর) বিকেলে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর নুর কমিউনিটি সেন্টারে যুবলীগ আয়োজিত জরুরি নির্বাচনী সভায় ...

‘আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড মেনে নেওয়া হবে না’

আন্দোলনের নামে কোনো ধরনের সন্ত্রাস সৃষ্টি, জণভোগান্তি এবং জণমালের ক্ষতি সরকার মেনে নেবে না বলে বিএন‌পিকে সতর্ক করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। রোববার (০৪ অক্টোবর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ত্রাণ ...

শিরোনামঃ