পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বাংলাদেশ > রাজনীতি > ‘ক্ষমতা ধরে রাখতে মরিয়া সরকার’

‘ক্ষমতা ধরে রাখতে মরিয়া সরকার’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : সুশীল সমাজের পরামর্শ আমলে না নিলে তাদের সঙ্গে নির্বাচন কমিশন (ইসি) কি কারণে সংলাপ করল-সেই প্রশ্ন তুলে প্রক্রিয়াটিকে ‘তামাশা’ হিসেবে অভিহিত করেছে বিএনপি।

সংলাপ প্রক্রিয়া বন্ধ করে জনগণের আস্থা আনতে ‘হারানো ভোটাধিকার’ ফিরিয়ে দিতে কাজ করতে ইসির প্রতি আহ্বানও জানিয়েছে দলটি।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী এ কথা বলেন।

স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রাক্তন দপ্তর সম্পাদক মুন্সি জামাল উদ্দিন আহম্মেদের ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে উদ্দেশ্য করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন (ইসি) চলমান সংলাপকে তামাশায় পরিণত করেছে। সংলাপের নামে যা করছেন তা মানুষ তামাশা বলেই ধরে নিয়েছে। এসব বন্ধ করুন, মানুষকে ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিতে কাজ করুন। তবে আপনাদের ওপর জনগণের আস্থা ফিরবে।’

‘সংলাপে অংশ নিয়ে সুশীল সমাজের প্রায় ৯০ ভাগই যে বক্তব্য দিয়েছেন তা নিয়ে সিইসি বললেন, তারা যে সুপারিশ করেছেন, তা শাসনতন্ত্র ও প্রচলিত আইনে বলা আছে। যদি বলাই থাকে, তাহলে আপনি সংলাপের নামে তামাশা করছেন কেন? এই নাটক না করলেই পারতেন।”

নির্বাচন নিয়ে সুশীল সমাজের মতামত আমলে না নিলে তাদের সঙ্গে ইসির বৈঠকের যৌক্তিকতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন বিএনপির এই নেতা।

‘তবে কি ৯০ ভাগ বুদ্ধিজীবীদের সুপারিশ অগ্রাহ্য করার জন্য, তাদেরকে অপমান করার জন্য আপনি তাদের সংলাপে ডেকেছিলেন? যদি প্রচলিত আইনেই নির্বাচন হয়, তাহলে নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ হবে না। নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার কোনো অঙ্গীকারও আপনার নেই।”

সিইসির উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, ‘ভোটাধিকার যেভাবে কেড়ে নেওয়া হয়েছে, জেলায় জেলায় যেভাবে তুফানদের সৃষ্টি করা হয়েছে, সে অবস্থা থেকে দেশকে পরিত্রাণ দেবে কে? সেখান থেকে দেশবাসীকে পরিত্রাণ দেওয়ার জন্য আপনি আশার বাণী শুনাবেন। সেটি না করে শাসনতন্ত্র ও প্রচলিত আইনের কথা বলছেন।’

‘প্রচলিত আইন তো প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছেমত পরিবর্তন করেছেন, একদলীয় বাকশালী সংসদ দিয়ে। শাসনতন্ত্রের ক্ষমতা যেহেতু প্রধানমন্ত্রীর হাতে, তাহলে আপনি (প্রধান নির্বাচন কমিশনার) কি বাকশালকে দীর্ঘায়িত করার ষড়যন্ত্র করছেন?”, বলেন রিজভী।

বিএনপির নেতা-কর্মীদের হত্যা-গুম করা হচ্ছে অভিযোগ করেন দলটির এই জ্যেষ্ঠ যুগ্মমহাসচিব বলেন, ‘এই ব্যবস্থা জারি রাখা হয়েছে শুধু এক ব্যক্তির শাসন ব্যবস্থা প্রলম্বিত করার জন্য।’

তিনি বলেন, ‘আগস্ট মাসে ভয়াবহ একটি মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে। এটা আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গসংগঠন পালন করবে। তার মানে এই নয় যে, অন্য কেউ কোনো কর্মসূচি পালন করতে পারবে না। এটা হচ্ছে বাকশালী মনোবৃত্তি।’

স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আরো বক্তব্য দেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু প্রমুখ।

x

Check Also

ধর্ষণের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ অবস্থান চান রওশন

ধর্ষণের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ অবস্থান দরকার বলে মনে করেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। বুধবার (০৭ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, দেশজুড়ে একের পর এক ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। সেই সঙ্গে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক ...

যুবলীগকে মাঠে থাকার নির্দেশ

ঢাকা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে যুবলীগকে মাঠে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন সংগঠনটির চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। রোববার (৪ অক্টোবর) বিকেলে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর নুর কমিউনিটি সেন্টারে যুবলীগ আয়োজিত জরুরি নির্বাচনী সভায় ...

‘আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড মেনে নেওয়া হবে না’

আন্দোলনের নামে কোনো ধরনের সন্ত্রাস সৃষ্টি, জণভোগান্তি এবং জণমালের ক্ষতি সরকার মেনে নেবে না বলে বিএন‌পিকে সতর্ক করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। রোববার (০৪ অক্টোবর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ত্রাণ ...

শিরোনামঃ