পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বিনোদন > আবারো যৌথ প্রযোজনার নামে প্রতারণা, অবহেলিত ঢালিউড শিল্পীরা

আবারো যৌথ প্রযোজনার নামে প্রতারণা, অবহেলিত ঢালিউড শিল্পীরা

বাংলাদেশ-ভারত ১৯৭৩ সাল থেকে যৌথভাবে চলচ্চিত্র প্রযোজনা করে আসছে। যৌথভাবে নির্মিত সিনেমাগুলো তখন দু দেশেই বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল।

২০১৪ সালে বাংলাদেশ-ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘আমি শুধু চেয়েছি তোমায়’ সিনেমাটি মুক্তির পর ঢালিউডে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল। এ সিনেমায় ভারতের পরিচালক, শিল্পী ও কলাকুশীদের বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছিল। এমনকি ভারতে প্রচারের জন্য তৈরি পোস্টারে বাংলাদেশি পরিচালক, গীতিকার কিংবা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের নামও ব্যবহার করা হয়নি। একইভাবে ‘রোমিও ভার্সেস জুলিয়েট’ সিনেমার পোস্টারেও পরিচালকের নাম দেখা যায়নি।

বাংলাদেশ-ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘তুই আমার রানী’ সিনেমাটি আজ শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পেয়েছে। কিন্তু ভারতে সিনেমাটির যেসব পোস্টার ব্যবহার করা হয়েছে তাতে বাংলাদেশের পরিচালক, শিল্পী, প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের নাম দেয়া হয়নি। এটি বাংলাদেশ-ভারতের যৌথ প্রযোজনার সিনেমা সে কথাটিও লেখা হয়নি।

সিনেমার নাম ‘রানী’ থাকলেও ভারতের বিভিন্ন অলি-গলিতে সাঁটানো পোস্টারে দেখা যায়, সিনেমার নায়কের গুরুত্ব বেশি। কারণ এই সিনেমায় বাংলাদেশের নায়িকা মিষ্টি জান্নাতের বিপরীতে অভিনয় করেছেন কলকাতার অভিনেতা সূর্য। সিনেমার নায়ক সূর্যের ছবি বড় করে দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে নায়িকা মিষ্টি জান্নাতের ছবি ছোট করে দেয়া হয়েছে। মিষ্টি বাদে এতে বাংলাদেশের কোনো শিল্পীর ছবি নেই। এছাড়া পোস্টারে পরিচালক পীযূষ সাহার নাম থাকলেও বাংলাদেশের পরিচালক সজল আহমেদের নাম নেই।

‘তুই আমার রানী’ সিনেমাটি যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন বাংলাদেশের সজল আহমেদ ও ভারতের পীযূষ সাহা। বাংলাদেশের হ্যাভেন মাল্টিমিডিয়া ও ভারতের প্রিন্স এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে নির্মিত এ সিনেমার শুটিং বাংলাদেশ ও ভারতে হয়েছে। মিষ্টি-সূর্য ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের আবু হেনা রনি, সজল, ভারতের রাজেশ শর্মা, সুপ্রিয় দত্ত, দোলনসহ অনেকে।

এ বিষয়ে জানার জন্য সিনেমাটির পরিচালক সজল ও অভিনেত্রী মিষ্টি জান্নাতের মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও তাদের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। শোনা যায়, তারা এখন কলকাতায় অবস্থান করছেন।

পশ্চিমবঙ্গের সিনেমা এখন ব্যবসায়ীকভাবে ‘হুমকি’-এর মুখে পড়েছে। তামিল ও হিন্দি সিনেমার প্রতিই পশ্চিমবঙ্গের দর্শকদের এখন বেশি ঝোঁক। তাই তাদের নজর বাংলাদেশের বাজারে। আর এ জন্যই ‘যৌথ প্রযোজনা’। এমন কথা অনেক আগেই বলেছিলেন কলকাতার পরিচালক অঞ্জন দত্ত।

গত কয়েক বছর ধরে যৌথ প্রযোজনার নামে বাংলাদেশি দর্শকদের বোকা বানিয়ে ‘যৌথ প্রযোজনা’-এর সিনেমা নির্মাণ করা হচ্ছে। এর অধিকাংশ সিনেমায় বাংলাদেশের নির্মাতা, শিল্পী ও কলাকুশলীরা অবহেলিত বা গুরুত্বহীন। যৌথ প্রযোজনার নামে নির্বিঘ্নে ভারতীয় সিনেমা বাংলাদেশে ব্যবসা করার সুযোগ করে দিচ্ছে। দেশীয় শিল্প নষ্ট করে দেশের অর্থ বিদেশে পাচার করা হচ্ছে বলেও চলচ্চিত্র বোদ্ধারা মনে করছেন।

x

Check Also

শুভশ্রী-শ্রাবন্তীর পথে হাঁটছেন প্রিয়াঙ্কা

ভারতীয় বাংলা সিনেমার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী শুভশ্রী গাঙ্গুলি, শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি, প্রিয়াঙ্কা সরকার। বড় পর্দার কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকেন তারা। ছোট পর্দায় দেখা যায় না বললেই চলে। কিছুদিন আগে ছোট পর্দায় ফিরেছেন শুভশ্রী গাঙ্গুলি ও শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি। ...

পুলিশ কমিশনার বাপ্পারাজ !

‘তুমি বন্ধু আমার চির সুখে থেকো’, ‘আমি তো একদিন চলে যাব’, ‘তোমরা সবাই থাকো সুখে’ সহ বেশ কিছু বিরহ ঘরানার গান আজও দর্শকদের হৃদয় ছুঁয়ে যায়। চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় এসব গানে ঠোঁট মিলিয়েছেন চিত্রনায়ক বাপ্পারাজ। এসব ...

‘রাতারাতি তারকা হইনি’

‘রকিং স্টার’খ্যাত কন্নড় সিনেমার অভিনেতা যশ। গত বছর মুক্তিপ্রাপ্ত কে.জি.এফ: চ্যাপটার ওয়ান সিনেমার মাধ্যমে আলোচনায় আসেন। তবে এই অভিনেতা মনে করেন, এক সিনেমা দিয়ে রাতারাতি তারকা হননি তিনি। যশ বলেন, এক সিনেমা কারো ভাগ্যের পরিবর্তন ...

শিরোনামঃ