পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > আন্তর্জাতিক > সৌদি যুবরাজের ভণ্ডামি

সৌদি যুবরাজের ভণ্ডামি

সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটির সামাজিক ব্যবস্থাকে পরিবর্তনে কাজ শুরু করেছেন। তাঁর উদ্যোগে নারীদের গাড়ি চালানোর এবং স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার অনুমতি দিয়েছে দেশটির রাজতন্ত্র। সিনেমা হলের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়ছে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছেন তিনি। আর তেল থেকে নির্ভরতা কমাতে, অর্থনৈতিক সংস্কারে ‘ভিশন ২০৩০’ গ্রহণ করেছেন। এই পরিকল্পনার অধীনে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড এবং বিনিয়োগের মাধ্যমে কর্মসংস্থান বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। মোহাম্মদ বিন সালমানের এমন কর্মকাণ্ড দেশটির তরুণ প্রজন্মের মধ্যে তাঁর জনপ্রিয়তা বাড়িয়েছে। কিন্তু যুবরাজের এমন জনপ্রিয়তায় ছায়া ফেলেছে তাঁর বিলাসবহুল জীবনযাপন।
২০১৫ সালে ৩০০ মিলিয়ন ডলারে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে একটি প্রাসাদ কেনেন যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান। সংবাদ মাধ্যম টাইমসের খবরে বলা হয়, এটিই বিশ্বের সবচেয়ে দামি বাড়ি। একই বছর ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করে একটি বিলাসবহুল প্রমোদতরী কেনেন তিনি। সম্প্রতি ৪৫০ মিলিয়ন ডলারে শিল্পী লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির আঁকা একটি ছবি কিনেছেন। আর এ সবই তিনি করেছেন বেনামে।
সাম্প্রতিক সময়ে তাঁর নেতৃত্বে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের নামে প্রিন্স ও ব্যবসায়ীসহ প্রায় ২০০ জনকে আটক করে সৌদি সরকার। এটিকে দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের চেয়ে ক্ষমতা সংহত করার প্রচেষ্টা বলেই মনে করছেন অনেকে। আর আটকের পর তাদের বিলাসবহুল হোটেলে বন্দী রেখে বিচারের পরিবর্তে তাদের সম্পদ সরকারি কোষাগারে জমা দিতে বাধ্য করা হয়। এটি আইনি শাসনের অনুসরণ নয়, বরং একটি স্বৈরাচারি শাসন ব্যবস্থাকেই সামনে নিয়ে আসে।
তিনি যদি সত্যিই একটি আধুনিক এবং উদার সৌদি আরব প্রতিষ্ঠা করতে চান তাহলে তাঁর উচিত সৌদি আরবের ভিন্নমতাবলম্বী চিন্তক এবং রাজনৈতিক কর্মীরা গ্রেপ্তার হয়ে কারাবাস করছেন,তাদের মুক্তি দেওয়া। এর পরিবর্তে সাম্প্রতিক সময়ে তিনি বরং রাজনৈতিক বিরোধী এবং ভিন্ন মতাদর্শে বিশ্বাসীদের আটক এবং দমন করছেন। মোহাম্মদ বিন সালমানের উচিত এই ভিন্ন মতাবলম্বী এবং মতাদর্শের রাজনৈতিক কর্মীদের স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেওয়া এবং তাদের বাক স্বাধীনতা নিশ্চিত করা।

x

Check Also

করোনাভাইরাস : পাল্টে গেছে চীনাদের জীবন

চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে চীনাবাসীর জীবনযাপন রীতিমত পাল্টে গেছে। এখন মহামারীর সাথে খাপ খাওয়াতে সৃষ্টিশীল চিন্তাভাবনা শুরু করেছে চীনাবাসী। মুখের মাস্ক চীনে সবসময়ই গুরুত্বপূর্ণ পণ্য। জনসমাগম বেশি এমন জায়গায় ...

আইসিজের আদেশ প্রত্যাখ্যান মিয়ানমারের

রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে গাম্বিয়ার দায়ের করা মামলায় আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ প্রত্যাখ্যান করেছে মিয়ানমার। বৃহস্পতিবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এই কথা জানিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের দাবি, আদালত পরিস্থিতির ‘বিকৃত চিত্র উপস্থাপন’ করেছে। কোনো দেশের ...

লেবাননে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত ৪০০

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে প্রায় ৪০০ লোক আহত হয়েছে। শনিবার রাতে এ সংঘর্ষ ঘটে। গত তিন মাস ধরে লেবাননে অর্থনৈতিক সংকটের প্রতিবাদে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ চলছে। গত বছরের শেষ ...

শিরোনামঃ