পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > জীবনযাপন > মায়ের জন্য ভিন্ন কিছু

মায়ের জন্য ভিন্ন কিছু

মা দিবস, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো আমাদের দেশেও এ দিবস পালিত হয়। যদিও মায়ের প্রতি ভালোবাসা ও দায়িত্ব পালনে আলাদা কোনো উপলক্ষ্য বা দিবসের প্রয়োজন নেই। তাই মা দিবসের পক্ষে, বিপক্ষে অনেক কথাই বলা সম্ভব।

মা, মানুষের জীবনের সবচেয়ে প্রিয় ও কাছের একজন, অনেক বড় সম্পদ। তাই মায়ের প্রতি ভালোবাসা প্রতিদিনের, প্রতিক্ষণের। কিন্তু একটি দিন বিশেষভাবে মাকে নিয়ে পালন করা দোষের নয়। আগামীকাল, বিশ্ব মা দিবস। সেই উপলক্ষে মায়ের জন্য সন্তানের পক্ষ থেকে চমকে দেয়া বিশেষ কিছু উপহার নিয়ে আজকের আয়োজন।

প্রতিজ্ঞা
মা দিবসে মাকে উপহার দিবে পারেন ‘প্রতিজ্ঞা”’। শুনতে অবাক লাগতে পারে এটা আবার কেমন উপহার। কিন্তু এই জিনিসটাই হয়তো মায়ের সঙ্গে আপনার বন্ধনটা আরো শক্তিশালী করবে। আমাদের এমন অনেক স্বভাব বা কাজ আছে, যা মা পছন্দ করেন না। সে চায় আমরা সেটা থেকে দূরে থাকি। বা এমন হতে পারে কোনো একটা কাজ বা আচরণ মায়ের খুব পছন্দের কিন্তু কোনো না কোনো কারণে সেটা আমরা করি না। তাই মায়ের পছন্দের কোনো কাজ করা বা অপছন্দের কিছু ত্যাগ করার প্রতিজ্ঞা হোক মা দিবসে মায়ের জন্য সন্তানের উপহার।

মাকে জড়িয়ে ধরে বা মায়ের হাতের ওপর হাত রেখে প্রতিজ্ঞা করতে পারেন। স্পর্শের মধ্য দিয়ে অনুভূতি আরো দৃঢ়ভাবে প্রকাশ পায়।

সময়
নাগরিক জীবনের ব্যস্ততা যেন হু হু করে বাড়ছে। কাজের চাপে অন্যের জন্য সময় বের করতে আজকাল অনেকেই হিমশিম খায়। তারপরও কলিগ, বন্ধুদের আড্ডাতে ঠিকই সময় বের করে আমরা যেতে চেষ্টা করি। সেই ব্যস্ত সময় থেকে মায়ের জন্য অন্তত প্রতিদিন ১৫ মিনিট হলেও রাখুন।

আপনার হয়তো মনে হতে পারে মায়ের সঙ্গে তো প্রতিদিন দেখা বা কথা হয়ই। তাহলে সময় তো দিচ্ছিই। কিন্তু প্রতিদিনের এই কথা, দেখাকে কোয়ালিটি টাইম বলে না। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অনন্ত ১৫ মিনিট মায়ের সঙ্গে চা খেতে খেতে বা বসে গল্প করুন। বয়স যত হয় মানুষ মানসিকভাবে নিজেকে একা ভাবতে শুরু করে। মাকে প্রতিদিন এই সময়টা দিন, মা নিজেকে একা ভাববে না। আর এই সময়টা দেওয়া শুরু হোক মা দিবসের দিন থেকে।

ঘুরতে নিয়ে যাওয়া
সংসার, সন্তানের প্রতি ভালোবাসা আর দায়িত্বের কারণে মায়েরা সেভাবে কোথাও ঘুরতে যেতে পারে না। মাকে নিয়ে তাই ঘুরে আসতে পারেন কোনো দর্শনীয় স্থান বা প্রকৃতির কাছ থেকে। মাকেও জিজ্ঞেস করুন সে কি দেখতে চায়, কোথায় গেলে তার ভালো লাগবে।

আর প্রকৃতি মানুষের মনকে উজ্জীবিত করে। মায়েরা সংসার ও সন্তানদের নিয়ে সব সময় নানা চিন্তায় ডুবে থাকে। যা মানসিক ও শারীরিক অনেক সমস্যার পিছনের কারণ। তাই মাকে নিয়ে ঘুরে আসুন।

মায়ের বন্ধুবান্ধব
মা দিবসে মায়ের বন্ধুবান্ধবদের নিমন্ত্রণ করতে পারেন। মা ভীষন চমকে যাবে। প্রতিটি মানুষের জীবনে বন্ধুত্বের জায়গাটা অন্যরকম। কিন্তু আমাদের সমাজে বিয়ের পর চাইলেও অনেক ক্ষেত্রে যাদের সঙ্গে বেড়ে উঠা, পড়াশুনা করা তাদের সঙ্গেই আর যোগাযোগ করা হয় না। মায়ের মুখে শোনা ছোটবেলার বন্ধুবান্ধবের গল্প আমরা কম বেশি সবাই শুনেছি। তখন খেয়াল করেছেন সেইসব দিনের কথা বলতে বলতে মা কেমন আনমনা হয়ে দ্বীর্ঘশ্বাস ফেলছে।

বর্তমানে মায়ের যাদের সঙ্গে যোগাযোগ আছে বা নেই, এমন মানুদের একত্রিত করার একটা প্রয়াস করে দেখুন। মায়ের মুখে পুরোনো স্মৃতিতে থাকা মানুষদের দেখে যে অশ্রুসজল হাসি দেখবেন তা অতুলনীয়।

ছবি
মায়ের ছোটবেলার কোনো ছবি সংগ্রহ করে বাঁধাই করে দিতে পারেন। ইচ্ছে হলে আপনার আর মায়ের ছোটবেলার ছবি একই ফ্রেমে বা পাশাপাশি ফ্রেমে বাঁধাই করে দিন। নিজেকে আর প্রিয় সন্তানকে ছোটবেলার রুপে দেখে মায়ের অনেক স্মৃতি মনে পড়ে যদি দু এক ফোটা জল পড়ে ভয় পাবেন না। কিছু জল আনন্দ আর স্মৃতিকে নতুন রূপে দেখেও বের হয়।

মায়ের তুলনা মা। শুধু দিবস না, মায়ের জন্য সন্তানের ভালোবাসা থাকুক প্রতিদিন, প্রতিক্ষণের। কিন্তু দিবসকে সামনে রেখে মাকে চমকে দিতেই পারেন। তাকে অনুভব করতে দিন হাজার ব্যস্ততায়ও আপনি সেই ছোট্ট-ই রয়েছেন যার ভুবনে মা আজীবনের জন্যই অতুলনীয়।

x

Check Also

ড্রাগন ফল কতটা স্বাস্থ্যকর?

বেশ কয়েক বছর ধরেই বাজারে ড্রাগন ফল দেখা যায়। দেশের কয়েকটি জেলায় বিদেশি এই ফল চাষও বাড়ছে উল্লেখযোগ্য হারে। এই ফলকে পিথায়া বা স্ট্রবেরি পিয়ারও বলে। তবে আমাদের দেশে এটি ড্রাগন ফল হিসেবেই পরিচিতি পাচ্ছে। ...

সহজেই নিজের দক্ষতা বাড়ান

কম্পিউটারে ফেসবুক চালানো আর ইউটিউবে ভিডিও দেখা ছাড়াও অনেক রকমের কাজ করা যায়। এ কথা সবার জানা থাকলেও, অনেকেই গুরুত্ব দেয় না। আর যারা গুরুত্ব দেয় তারা ইতোমধ্যে কম্পিউটারের বিভিন্ন কাজে দক্ষতা অর্জন করে নিজেকে ...

পাঁচ বছরের বৃদ্ধ

বিজ্ঞানের উন্নতির সঙ্গে রোগের সম্পর্ক চিরকাল বৈরি। একটি ডালে ডালে চললে অপরটি চলে পাতায় পাতায়। অর্থাৎ বিজ্ঞান যত উন্নতি করে, তত নিত্যনতুন রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। চিকিৎসা বিজ্ঞানের নাভিশ্বাস কমে না। নইলে আরো নতুন ওষুধ, ...

শিরোনামঃ