পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > আমাদের রাজশাহী > রাজশাহীর আদালত পাড়ায় নয় মাসেও সমাধান হয়নি ডেমি সংকটের

রাজশাহীর আদালত পাড়ায় নয় মাসেও সমাধান হয়নি ডেমি সংকটের

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর আদালত পাড়ায় ডেমি পেপারের তিব্র সংকট দেখা দিয়েছে। গত বছরের অক্টোবর থেকে এ সংকট তৈরী হয়ে বর্তমান সময় পর্যন্ত বহাল থাকলেও সুরাহা মিলছেনা এ সংকট সমাধানের। সরকারের ট্রেজারী শাখা থেকে বিভিন্ন সময় আস্বস্ত করা হলেও তা আর দীর্ঘ্য নয় মাসেও কাজে পরিনত হয়নি। বর্তমান সময়ে চলতে থাকা ডেমি সংকট ক্রমেই প্রকট আকার ধারণ করছে। রাজশাহীর আদালত পাড়ায় এখন সোনার হরিণে পরিনত হয়েছে ডেমি পেপার। অধিকাংশ স্ট্যাম্প-ভ্যান্ডারের দোকানী বলেন দীর্ঘ্য নয় মাস ধরে যে সমস্যা তৈরী হয়েছে তা আসছে জুলাই মাসে সমাধানের কথা থাকলেও তা আদৌ এ বছরের সমাধান হবেকিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।

ডিসি অফিস, জেলাজজ আদালত ও ভূমি রেজিষ্ট্রি অফিসের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই রয়েছে ডেমির ব্যবহার। এর মধ্যে উল্লেখ্য ফৌজদারী মামলার ফাইলিং, টাইম পিটিশন, বেল পিটিশনসহ বিভিন্ন রনের পিটিশন ও দেওয়ানি মামলার ক্ষেত্রে মামলারর অরজি ডেমি পেপারে লিখতে হয়। এছাড়াও ভূমি রেজিষ্ট্রি অফিসে জমিজমা রেজিষ্ট্রি সংক্রান্ত কাজে বহুলভাবে ডেমি ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

রাজশাহীর আদালত পাড়াকে কেন্দ্র করে প্রায় অর্ধ্বশত স্ট্যাম-ভ্যান্ডারের দোকান থাকলেও এ সকল দোকানের কোনটিতেই মিলছেনা আদালতে বহুল ব্যবহৃত ডেমি পেপার। আবার কোন কোন কোন সময় পাওয়া গেলেও তা নির্ধারীত মূল্যের সাত থেকে আট গুন বেশি দামে বিক্রি হতে দেখা যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কোর্টের অধিকাংশ ট্যাম্প-ভ্যান্ডারের কাছে ডেমি পেপার রয়েছে। তারা বিভিন্ন সময় এ পেপার কিনে মজুদ করে রেখেছে। বর্তমানে কৃত্তিম সংকট তৈরী করে পাঁচ টাকার ডেমি চল্লিশ থেকে পঞ্চাশ টাকায় বিক্রি করছে। অধিকাংশ দোকানী রয়েছেন যারা আইনজীবী ও মোহরার এর নিকট ডেমি পেপার বিক্রি করছেননা। তারা শহরের বাইরে থেকে জমির দলীল ও আদালতে বিভিন্ন প্রয়োজন সারতে আসা মানুষের কাছে এই পেপার চড়া দামে বিক্রি করছেন।

উল্লেখ্য, ডেমি পেপারের সর্বরাহ পর্যাপ্ত থাকা কালে প্রতি পিস বিক্রি হতো পাঁচ টাকা থেকে সাত টাকা। আর গত বছরের অক্টোবর থেকে বিক্রি হচ্ছে চল্লিশ থেকে পঞ্চাশ টাকা। বাংলাদেশের আদালত পাড়ায় সরকারের সর্বাধিক রাজস্ব উপার্জনের খাতগুলোর মধ্যে ডেমি পেপার অন্যতম। ডেমি সংকটের কারনে একদিকে সরকার যেন বিপুল পরিমানে রাজস্ব হারাচ্ছে, তেমনি কৃত্তিম সংকট তৈরীর কারনে স্ট্যাম্প-ভ্যান্ডার ব্যাবসায়ীদের কাছে জিম্মি হচ্ছেন সাধারণ মানুষ থেকে আইনজীবীরা। বর্তমানে ডেমি সংকটের কারনে বিকল্প হিসেবে লিগ্যাল সাইজের নীল রংয়ের এক ধরনের কাগজ দিয়ে দায় সারা কাজ চালানো হলেও এটিকে সর্বোত্তম সমাধান বলে মেনে নিতে আইনজীবী ও মোহরারগন।

ডেমি পেপার মজুত করার ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভ্যান্ডার ব্যাবসায়ী বলেন, আমরা ডেমি মজুত করিনি। সরকারী নিয়ম মেনে যা আমাদের প্রাপ্য তাই কিনে রেখেছিলাম। বর্তমানে আমার কাছে এ প্যাকেট আছে। এটিকে মজুত বলে ধরা যায় না।

এ ব্যাপারে রাজশাহীর সহকারী কমিশনার ও ট্রেজারী শাখার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইকবাল হাসান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ডেমির বিষয়টি সরকারের মুদ্রন ও প্রকাশনা শাখার আওতায় রয়েছে। এখানে আমাদের কিছু করার নাই। তবে, আমরা জানতে পেরেছি যে, ডেমি সম্পর্কে হাইকোর্টে একটি রিট হয়েছে যা চলতি মাসেই মিমাংসার কথা রয়েছে। বিষটি সমাধান হওয়া সাপেক্ষে আমরা আসছে জুলাই মাস থেকে ডেমি স্বাভাবিকভাবে সর্বরাহ করতে পারবো বলে আশা করছি।

x

Check Also

১৯৭১ আমার মুক্তিযুদ্ধ’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন মেয়র লিটন

বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল রচিত ‘১৯৭১ আমার মুক্তিযুদ্ধ’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। আজ বুধবার দুপুরে নগরভবনে মেয়রের দপ্তরকক্ষে মহান মুক্তিযুদ্ধের গল্প বিষয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ...

দেশে করোনায় আরও ৩০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৫৬

দেশে নতুন করে ১ হাজার ৩৫৬ জনের দেহে নভেল করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ রোগের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া এই রোগে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য ...

রাজশাহী বিভাগে একদিনে বেড়েছে ৪৩ করোনা রোগী

রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় একদিনে ৪৩ জন করোনা রোগী বেড়েছে। নতুন আক্রান্ত এসব ব্যক্তিরা বৃহস্পতিবার শনাক্ত হয়েছেন। শুক্রবার (২৯ মে) দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রাজশাহীর আট ...

শিরোনামঃ