পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > খেলা > আন্তর্জাতিক ক্রিকেট > অদম্য মানসিকতাই যার শক্তি

অদম্য মানসিকতাই যার শক্তি

মাইনুল হাসান : ছবি কথা বলে। বাংলাদেশের গর্ব, বাংলাদেশ দলের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কথা বলছি। যার পা দুটো বেইমানি করলেও ঘাড়ের রগ বাঁকা করে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ছেন প্রতিপক্ষ দলগুলোকে। কিন্তু আজ (মঙ্গলবার) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে চলাকালীন প্রথম স্পেলে যখন মাশরাফি বোলিং করছিলেন, তখন একটা পর্যায়ে তার হাঁটুতে বাধা সেই বন্ধনীটি ঢিলা হয়ে যায়। ওই সময় ফিজিওকে ডাকলেন টাইগার দলপতি। তিনি তার ট্রাউজারটি উপরের দিকে তুলে পুরো হাঁটু বের করে রাখেন। এতোদিন মাশরাফি ভক্তরা তার হাঁটুর কল্পকাহিনী শুনলেও আজ সরাসরি তা দেখতে পায়।

হয়তো আমরা সবাই কমবেশি জানি, মাশরাফিকে এখনও মাঠে নামার আগে আধঘণ্টার বেশি সময় নিয়ে হাঁটুতে ব্যান্ডেজ বাঁধেন। মাশরাফি নিজ হাতে সিরিঞ্জ দিয়ে টেনে বের করেন তার হাঁটুতে জমে থাকা পানি। ওই সময়টাতে তার কষ্টের কথা যেভাবে বর্ণনা করা হয়, তা দেখলে যে কারও হয়তো চোখের পানি চলে আসার কথা। তবুও আজ দেশের টানে খেলে যাচ্ছেন সকলের ভক্তের চোখের মনি মাশরাফি। শুধু কি খেলেই যাচ্ছেন? শুধু খেলে যাচ্ছেন বললে যে ভুল বলা হবে। খেলে যাওয়াই নয়, প্রতিটি ম্যাচেই সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। তার অসাধারণ নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ এত দূরে আসতে পেরেছে।

সেই ২০১৫ বিশ্বকাপের পর থেকে আমরা বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে দেখতে পেয়েছি ওয়ানডেতে। কিন্তু এই বদলে যাওয়ার পেছনের নায়কটির কষ্টের অবদানটা হয়তো আমাদের চোখে খুব কমই পরেছে। প্রত্যেকটি খেলা শেষে যখন দলের খেলোয়াড়রা জয়ে উল্লাস করতে থাকেন তখন আমাদের চোখের মনি মাশরাফি ড্রেসিং রুমে বসে সিরিঞ্জ দিয়ে টেনে বের করেন তার হাঁটুতে জমে থাকা পানি।

আর আমাদের পুরো দেশ তখন জয়ের আনন্দে ভাসি। জয়ের মিছিল করে রাস্তায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে আনন্দ প্রকাশ করি। তখন জয়ের পেছনের নায়কের কষ্ট আমরা কেউই মনে রাখি না। এই আমাদের মাশরাফি, যিনি দেশের জন্য অনবরত খেলে যাচ্ছেন নিজেকে উজাড় করে। যিনি নিজেও জানেন আর একটি বার হাঁটুর ইঞ্জুরিতে পড়লে তিনি আর দাঁড়াতে পারবেন না।

আমরা প্রত্যেকেই মাশরাফির হাঁটুর গল্প অনেক শুনেছি। কিন্তু কখনো নিজেদের চোখে দেখিনি আমাদের প্রিয় ক্রিকেটারের হাঁটুর কী অবস্থা। কখনো কল্পনাও করতে পারিনি তার হাঁটুর করুণ এই অবস্থা। আজ অবশেষে সেটাও দেখার সৌভাগ্য হলো আমাদের। ছোট-বড় মিলিয়ে তার হাঁটুতে অন্তত ১১ বার অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তবুও খেলে যাচ্ছেন বাংলাদেশ দলের এই রঙ্গিন জার্সির অধিনায়ক। যার হাত ধরে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব নতুন এক বাংলাদেশকে চিনছে।

মতামত : লেখকের নিজস্ব চিন্তাভাবনা

x

Check Also

নিষ্প্রাণ ব্যাটিংয়ে প্রতিরোধহীন পরাজয়

ধীর গতির উইকেট। বল ব্যাটে আসছিল থেমে থেমে। উইকেট দেখে দুই দলেরই চাওয়া ছিল টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়া। আশা পূর্ণ হয়েছিল রোহিত শর্মার। টসের পাশাপাশি ম্যাচও জিতলেন ভারতীয় অধিনায়ক। নিদাহাস ট্রফিতে জয়ে ফিরেছে ভারত। আর ...

ভারতকে উড়িয়ে শ্রীলঙ্কার শুরু

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিদাহাস ট্রফির শুরুটা দুর্দান্ত হয়েছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার। কুশল পেরেরার ঝোড়ো ফিফটিতে টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে ভারতকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে লঙ্কানরা। কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ...

ছিটকে গেলেন সাকিব, দলে ঢুকলেন লিটন

ক্রীড়া প্রতিবেদক :  শ্রীলঙ্কায় নিদাহাস ট্রফিতে সাকিব আল হাসানের খেলা নিয়ে ছিল শঙ্কা। সেই শঙ্কাই সত্যি হলো। বাঁ হাতের আঙুলের চোট পুরোপুরি না সারায় সাকিবের নিদাহাস ট্রফিতে খেলা হচ্ছে না। একটা-দুটো ম্যাচ না, পুরো টুর্নামেন্টেই খেলতে ...

শিরোনামঃ