পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > খেলা > তিন দিনেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারাল বাংলাদেশ

তিন দিনেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারাল বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : 

চট্টগ্রাম টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তিন দিনেই হারিয়েছে বাংলাদেশ। ৬৪ রানের জয়ে দুই ম্যাচ সিরিজে এগিয়ে গেছে সাকিব আল হাসানের দল।

বাংলাদেশের প্রথম

প্রথমবারের মতো দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টেস্টে হারাল বাংলাদেশ। সব মিলিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৫ টেস্টে এটি বাংলাদেশের তৃতীয় জয়। আগের দুটি জয় ছিল ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে।

তাইজুলের ছয়ে বাংলাদেশের দারুণ জয়

সুনীল অ্যামব্রিসকে ফিরিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস গুটিয়ে দিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। ২০৪ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলআউট হয়েছে ১৩৯ রানে। বাঁহাতি স্পিনারকে ডিফেন্ড করতে গিয়ে বল মিস করেন অ্যামব্রিস। কট বিহাইন্ডের আবেদনে আঙুল তুলে দেন আম্পায়ার। যদিও টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল ব্যাট স্পর্শ করেনি। অ্যামব্রিস রিভিউ নিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার আগেই শেষ হয়ে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই রিভিউ।

দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৩ রানে ৬ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের জয়ে বড় অবদান রেখেছেন তাইজুল। সাকিব ও মিরাজ পেয়েছেন ২টি করে উইকেট। প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরির জন্য ম্যাচসেরা হয়েছেন মুমিনুল হক।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৩২৪

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ২৪৬

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: ১২৫ (ইমরুল ২, সৌম্য ১১, মুমিনুল ১২, মিথুন ১৭, সাকিব ১, মুশফিক ১৯, মিরাজ ১৮, মাহমুদউল্লাহ ৩১, নাঈম ৫, তাইজুল ১, মুস্তাফিজ ২*; বিশু ৪/২৬, চেজ ৩/১৮, ওয়ারিকান ২/৪৩, গ্যাব্রিয়েল ১/২৪)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২ম ইনিংস: (লক্ষ্য ২০৪) ১৩৯ (ব্রাফেট ৮, পাওয়েল ০, হোপ ৩, অ্যামব্রিস ৪৩ , চেজ ০, হেটমায়ার ২৭, ডোরিচ ৫, বিশু ২, রোচ ১, ওয়ারিকান ৪১, গ্যাব্রিয়েল ০; তাইজুল ৬/৩৩, সাকিব ২/৩০, মিরাজ ২/২৭)।

ফল: বাংলাদেশ ৬৪ রানে জয়ী

সিরিজ: দুই ম্যাচ সিরিজে বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: মুমিনুল হক।

প্রতিরোধ ভাঙলেন মিরাজ

অ্যামব্রিস-ওয়ারিকানের পঞ্চাশোর্ধ জুটিটা বাংলাদেশের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। ৬৩ রানের এ জুটি ভেঙে বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। অফ স্পিনারকে উড়াতে গিয়ে বল আকাশে তোলেন জোমেল ওয়ারিকান। মিড উইকেট থেকে কিছুটা দৌড়ে দুইবারের চেষ্টায় ক্যাচ নেন সাকিব আল হাসান।

ওয়ারিকান ক্যারিয়ার সেরা ৪১ রান করে ফেরার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর ৯ উইকেটে ১৩৮ রান। সুনীল অ্যামব্রিসের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল।

অ্যামব্রিস-ওয়ারিকান জুটির পঞ্চাশ

৭৫ রানে ৮ উইকেট হারানোর পর নবম উইকেটে ফিফটি রানের জুটি গড়েছেন সুনীল অ্যামব্রিস ও জোমেল ওয়ারিকান। ৬৩ বলে ছুঁয়েছে জুটির পঞ্চাশ।

৩৩ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৩০ রান। অ্যামব্রিস ৩৬ ও ওয়ারিকান ৩৯ রানে অপরাজিত আছেন। জয়ের জন্য এখনো ৭৪ রান দরকার ওয়েস্ট ইন্ডিজের, বাংলাদেশের চাই ২ উইকেট।

তাইজুলের পাঁচ উইকেট

কেমার রোচকে ফিরিয়ে ইনিংসে নিজের পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেছেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউ হয়েছেন রোচ। আম্পায়ার যদিও প্রথমে আউট দেননি। বাংলাদেশ নেয় রিভিউ। তাতে পাল্টে সিদ্ধান্ত।

রোচের বিদায়ের সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ৭৫ রান। সুনীল অ্যামব্রিসের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন জোমেল ওয়ারিকান।

তাইজুলের চতুর্থ শিকার বিশু

তাইজুল ইসলামের বলে শট খেলতে গিয়ে মিস করে বোল্ড হয়েছেন দেবেন্দ্র বিশু। ইনিংসে এটি তাইজুলের চতুর্থ উইকেট।

বিশুকে ফিরিয়ে বাংলাদেশ জয়ের পথে এগিয়ে গেছে আরেক ধাপ। তখন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ৬৯ রান। সুনীল অ্যামব্রিসের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন কেমার রোচ। জয়ের জন্য আরো ১৩৫ রান দরকার ওয়েস্ট ইন্ডিজের, বাংলাদেশের চাই ৩ উইকেট।

তাইজুলের তৃতীয় শিকার ডোরিচ

শেন ডোরিচকে ফিরিয়ে ইনিংসে নিজের তৃতীয় উইকেট নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউ হয়েছেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। রিভিউ নিয়েও রক্ষা হয়নি।

ডোরিচ ৫ রান করে ফেরার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৫১ রান। সুনীল অ্যামব্রিসের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন দেবেন্দ্র বিশু।

 

বিপজ্জনক হেটমায়ারকে ফেরালেন মিরাজ

প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও পাল্টা আক্রমণে বাংলাদেশের বোলারদের ওপর চড়াও হয়েছিলেন শিমরন হেটমায়ার। এবারও তাকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে বড় উইকেট এনে দিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

আগের বলের পরই নাঈম হাসানকে মিড অফ থেকে সরিয়ে লং অফে পাঠান অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। সিদ্ধান্তটা দারুণভাবে কাজে দিয়েছে। অফ স্পিনার মিরাজকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে খেলতে গিয়ে নাঈমের হাতে ধরা পড়েন হেটমায়ার।

হেটমায়ারের বিদায়ে ভাঙে ৩৩ রানের পঞ্চম উইকেটে জুটি। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান ১৯ বলে ২৭ করে ফেরার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৪৪ রান। সুনীল অ্যামব্রিসের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন শেন ডোরিচ।

সাকিব-তাইজুলে টালমাটাল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

২০৪ রানের লক্ষ্য তাড়ায় সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলামের স্পিন বিষে নীল হয়ে শুরুতেই ওপরের দিকের চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। নিজের পরপর দুই ওভারে কাইরান পাওয়েল ও শাই হোপকে ফেরান সাকিব। লাঞ্চের আগে একই ওভারে ক্রেইগ ব্রাফেট ও রোস্টন চেজের উইকেট নেন তাইজুল।

 

লাঞ্চ বিরতির সময় ৫ ওভার ৫ বলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১১ রান। জয়ের জন্য এখনো ১৯৩ রান করতে হবে সফরকারীদের। দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রথমবারের মতো টেস্টে হারাতে বাংলাদেশের চাই আর ৬ উইকেট।

পাঁচ বলে দুই উইকেট তাইজুলের

প্রথমবারের মতো আক্রমণে এসে পাঁচ বলের মধ্যে দুই উইকেট তুলে নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি স্পিনারের প্রথম বলে এলবিডব্লিউ হন ক্রেইগ ব্রাফেট (৮)। পঞ্চম বলে এলবিডব্লিউ রোস্টন চেজও (০)। তখন ১১ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে ভীষণ বিপদে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

সাকিবের দ্বিতীয় শিকার হোপ

আগের ওভারে নিয়েছিলেন কাইরান পাওয়েলের উইকেট। নিজের পরের ওভারে এসে শাই হোপকেও ফিরিয়েছেন সাকিব আল হাসান।

বাঁহাতি স্পিনারকে পা বাড়িয়ে ডিফেন্ড করতে চেয়েছিলেন হোপ। বল তার ব্যাটের কানা ছুঁয়ে জমা হয় উইকেটকিপার মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসে।

হোপ ৩ রান করে ফেরার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১১ রান। ক্রেইগ ব্রাফেটের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন সুনীল অ্যামব্রিস।

বোথামকে ছাড়িয়ে সাকিব

দারুণ এক অর্জনে নাম লেখালেন সাকিব আল হাসান। টেস্টে দ্রততম ৩ হাজার রান ও ২০০ উইকেটের ডাবল এখন বাংলাদেশের অলরাউন্ডারের। তিনি ছাড়িয়ে গেছেন ইংলিশ কিংবদন্তি ইয়ান বোথামকে। এই ডাবল ছুঁতে বোথামের লেগেছিল ৫৫ টেস্ট। সাকিবের লাগল একটি কম, ৫৪ টেস্ট।

 

পাওয়েলকে ফিরিয়ে সাকিবের ২০০ উইকেট

ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই বাংলাদেশকে ব্রেক থ্রু এনে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। বাঁহাতি স্পিনারকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে খেলতে গিয়ে বল মিস করেন কাইরান পাওয়েল। স্টাম্পিংয়ের সহজ সুযোগ কাজে লাগান মুশফিকুর রহিম। টেস্ট ক্রিকেটে এটি সাকিবের ২০০তম উইকেট।

দলীয় ৫ রানে প্রথম উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পাওয়েল রানের খাতা খুলতে পারেননি। ক্রেইগ ব্রাফেটের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন শাই হোপ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২০৪ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ

৩ রানের মধ্যে শেষ ৩ উইকেট হারিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ১২৫ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসের ৭৮ রানসহ বাংলাদেশের লিড ২০৩ রানের। সিরিজের প্রথম টেস্ট জিততে হলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে করতে হবে ২০৪ রান।

লিড দুইশ ছোঁয়ার পর দেবন্দ্র বিশুর তিন বলের মধ্যে ফেরেন নাঈম হাসান ও মাহমুদউল্লাহ। নাঈম করেছেন ৫ রান। মাহমুদউল্লাহ ৩৬ বলে একটি করে চার এক ছক্কায় ৩১ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছেন।

পরের ওভারে আরেক স্পিনার রোস্টন চেজের বলে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন তাইজুল ইসলাম (১)। ২ রানে অপরাজিত ছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান।

 

২৬ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেরা বোলার বিশু। চেজ ১৮ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। জোমেল ওয়ারিকান ২টি ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েল নিয়েছেন একটি উইকেট।

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: ৩৫.৫ ওভারে ১২৫ (ইমরুল ২, সৌম্য ১১, মুমিনুল ১২, মিথুন ১৭, সাকিব ১, মুশফিক ১৯, মিরাজ ১৮, মাহমুদউল্লাহ ৩১, নাঈম ৫, তাইজুল ১, মুস্তাফিজ ২*; বিশু ৪/২৬, চেজ ৩/১৮, ওয়ারিকান ২/৪৩, গ্যাব্রিয়েল ১/২৪)।

বিশুর দারুণ ডেলিভারিতে আউট মিরাজ

দেবেন্দ্র বিশুর দারুণ এক ডেলিভারিতে আউট হয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। লেগ স্পিনারকে ডিফেন্ড করতে চেয়েছিলেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। বল লেগ স্টাম্পে পড়ে টার্ন করে মিরাজের ব্যাট ছুঁয়ে জমা হয় উইকেটকিপারের গ্লাভসে।

মিরাজের বিদায়ে ভাঙে ৩৭ রানের সপ্তম উইকেট জুটি। ৩৫ বলে ৩ চারে মিরাজ করেন ১৮ রান। তখন বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ১০৬ রান। লিড ১৮৪ রানের। মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে যোগ দিয়েছেন নাঈম হাসান।

একশ ছাড়াল বাংলাদেশ

দেবেন্দ্র বিশুকে স্কয়ার লেগে পাঠিয়ে দুই রান নিলেন মাহমুদউল্লাহ। এই দুই রানে দলীয় একশ ছাড়াল বাংলাদেশের। ২৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ৬ উইকেটে ১০২ রান। মাহমুদউল্লাহ ও মেহেদী হাসান মিরাজ দুজনই অপরাজিত ১৮ রানে।

জীবন পেলেন মাহমুদউল্লাহ

লেগ স্পিনার দেবেন্দ্র বিশুর কোমরের ওপরের বল কাট করতে চেয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ। তবে ঠিকমতো খেলতে পারেননি, ক্যাচ যায় স্লিপে। সেখানে বল হাতে জমাতে পারেননি শাই হোপ। ১৫ রানে জীবন পান মাহমুদউল্লাহ।

 

দিনের শুরুতেই আউট মুশফিক

দিনের প্রথম ওভারে বাঁহাতি স্পিনার জোমেল ওয়ারিকানকে সুইপ করে মেরেছিলেন চার। শেষ বলে করেছিলেন রিভার্স সুইপও। পরের ওভারে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের শিকার হয়ে ফিরলেন মুশফিকুর রহিম। ডানহাতি পেসারের ব্যাক অব লেংথে পড়া বলে ব্যাট ও প্যাডের মাঝের ফাঁক দিয়ে বোল্ড হয়েছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

মুশফিক ৩৯ বলে ১৯ রান করে ফেরার সময় বাংলাদেশের স্কোর ৬ উইকেটে ৬৯ রান। মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ।

বিপদে বাংলাদেশ

দ্বিতীয় দিনটা হতে পারত নাঈম হাসানের। সবচেয়ে কম বয়সে টেস্ট অভিষেকে পাঁচ উইকেট নেওয়ার বিশ্ব রেকর্ড গড়েন এই অফ স্পিনার। তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রথম ইনিংসে ২৪৬ রানে থামিয়ে ৭৮ রানের মূল্যবান লিড পেয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু ব্যাটিংয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে বিপদে আছে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৫৫ রান। আউট হয়েছেন ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, মুমিনুল হক, সাকিব আল হাসান ও মোহাম্মদ মিথুন। মুশফিকুর রহিম ১১ ও মেহেদী হাসান মিরাজ শূন্য রান নিয়ে আজ তৃতীয় দিনে ব্যাটিংয়ে নেমেছেন।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের খেলা শুরু হয়েছে সকাল সাড়ে নয়টায়। ৬ উইকেট হাতে নিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে ১৩৩ রানে।

দ্বিতীয় দিন শেষে সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৩২৪

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ২৪৬

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: ১৭ ওভারে ৫৫/৫ (ইমরুল ২, সৌম্য ১১, মুমিনুল ১২, মিথুন ১৭, সাকিব ১, মুশফিক ১১*, মিরাজ ০*; চেজ ২/১৬, ওয়ারিকান ২/২২, বিশু ১/৫)।

x

Check Also

বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারতের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা

বাংলাদেশের বিপক্ষে ঘরের মাঠে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে ভারত। যেটা নভেম্বরের ৩ তারিখ থেকে শুরু হবে। এই সিরিজকে সামনে রেখে আজ বৃহস্পতিবার ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে ভারতের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ড। টি-টোয়েন্টি সিরিজে রাখা ...

ধর্মঘট প্রত্যাহার, মাঠে ফিরছেন ক্রিকেটাররা

ক্রিকেটারদের সঙ্গে বিসিবির আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। ক্রিকেটারদের অধিকাংশ দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে ক্রিকেট বোর্ড। ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিয়েছেন ক্রিকেটাররা। বুধবার রাতে বিসিবিতে ক্রিকেটারদের সঙ্গে সভা শেষে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানান, শনিবার শুরু ...

দেশের ক্রিকেটের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র দেখছেন বিসিবি সভাপতি

হুট করে ১১ দফা দাবি তুলে ক্রিকেটারদের ডাকা ধর্মঘটের পেছনে ষড়যন্ত্র দেখছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সোমবার মিরপুরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে পারিশ্রমিক বাড়ানো, ক্রিকেটারদের অবকাঠামোগত উন্নয়ন- এমন নানাবিধ সমস্যার ...

শিরোনামঃ