পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > শিক্ষাঙ্গন > অভিভাবকদের মাঝে চাপা ক্ষোভ : ছাত্রীকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত 

অভিভাবকদের মাঝে চাপা ক্ষোভ : ছাত্রীকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত 

চারঘাট প্রতিনিধি:
মাদ্রাসা প্রাঙ্গন ঝাড়– না দেয়ায় রাজশাহীর চারঘাটে অষ্টম শ্রেণীর এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছেন সহকারী এক শিক্ষক। আহত ছাত্রীকে উদ্ধার করে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। উপজেলার বাদুড়িয়া গ্রামের আলমগীর হোসেনের মেয়ে এবং গোবিন্দপুর ইসলামীয়া দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী লিমা আখতার আলো। রোববার সকালে এ ঘটনা। এ বিষয়ে ওই ছাত্রীর পিতা আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে মাদ্রাসা শিক্ষক রবিউল ইসলামকে প্রধান আসামী করে মঙ্গলবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং চারঘাট মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।
আহত ছাত্রী লিমা আখতার আলো বলেন, রোববার সকালে মাদ্রাসা গেলে মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক রবিউল ইসলাম স্যার আমাকে মাদ্রাসা প্রাঙ্গন ঝাড়– দিতে বলেন। আমি শারীরিক ভাবে অসুস্থ্য থাকায় ঝাড়– দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তিনি আমাকে বাশের লাঠি দিয়ে এলোপাথারী ভাবে মারপিট করতে থাকে। পরে অন্য শিক্ষার্থীরা কান্নাকাটি করলে শিক্ষক রবিউল ইসলাম স্যার চলে যান। পরে আমি অসুস্থ্য হয়ে পড়লে আমার আত্মীয় স্বজনসহ সহপাঠিরা আমাকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করে।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত রবিউল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি মারপিটের কথা শিকার করলেও মাদ্রাসা প্রাঙ্গন ঝাড়– দেয়ার কথাটি সঠিক নয় বলে দাবী করেছেন।
তিনি বলেন, ওই ছাত্রী ক্লাস রুমে অসৌজনমুলক আচারনসহ বেয়াদবির জন্য তাকে দুটি মেরেছি। এতে সে অসুস্থ্য হওয়ার কথা নয়। ষড়যন্ত্র করে আমার মান ক্ষুন্য করতে আমার বিরুদ্ধে এমন মিথ্যা, বানোয়াট অভিযোগ তোলা হয়েছে।
এ বিষয়ে মাদ্রাসা সুপার আব্দুল কুদ্দুস ঘটনার সত্যতা শিকার করে বলেন, এটা খুবই দুঃখ জনক ঘটনা। এটা কোন শিক্ষকের নিকট থেকেই আশা করা যায় না। তার পরেও এ ঘটনায় আমরা খুবই কষ্ট পেয়েছি।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম বলেন, এটা কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায়। শিক্ষক হয়ে একজন ছাত্রীকে মারপিট করবে এটা লজ্জাজনক কাজ। তাছাড়া এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে অভিযুক্ত শিক্ষককের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিবারন চন্দ্র বর্মন অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শিক্ষকের দ্বারা ছাত্রী নির্যাতন এটা খুবই দুঃখ জনক। এ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ইউসুফপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শফিউল আলম রতন বলেন, ঘটনাটি সঠিক নয়। শিক্ষার্থী বেয়াদবী করার জন্য শিক্ষক রবিউল ইসলাম তাকে শাষন করেছেন মাত্র।

 

 

x

Check Also

সর্বস্তরের শিক্ষার্থীর জন্য বিনামূল্যে ইন্টারনেট দাবি

স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত সর্বস্তরের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিনামূল্যে ইন্টারনেট সুবিধা দেওয়ার দাবি জানিয়েছে অভিভাবক ঐক্য ফোরাম। বৃহস্পতিবার (০৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে এক বিবৃতিতে ফোরামের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মো. জিয়াউল কবির বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদেরকে নামমাত্র মূল্যে ইন্টারনেট ...

এ বছর জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষাও হবে না

২০২০ সালের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের এ তথ্য জানিয়েছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে এর আগে এ বছর কেন্দ্রীয়ভাবে ...

পিইসি-জেএসসি বাতিল: কার্যকর কৌশল তৈরির পরামর্শ শিক্ষাবিদদের

করোনার কারণে চলতি বছরের ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে সারা দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা (পিইসি), ইবতেদায়ি, জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা বাতিল করেছে সরকার। সরকারের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ...

শিরোনামঃ