পরীক্ষামূলক প্রকাশনা - সাইট নির্মাণাধীন

Home > বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি > অ্যাজমা রোগীদের মাস্ক পরা উচিত নয়

অ্যাজমা রোগীদের মাস্ক পরা উচিত নয়

অ্যাজমা (হাঁপানি) বা ফুসফুসের অন্যান্য রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের ফেস মাস্ক পরা এড়ানো উচিত বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

মহামারি করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি-কাশির মাধ্যমে ছড়াচ্ছে। তাই অনেক দেশেই নাগরিকদের মাস্ক পরার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, এই ভাইরাসের বিস্তার রোধের সবচেয়ে কার্যকর উপায় হলো সামাজিক দূরত্বের নিয়মগুলো অনুসরণ করা এবং নিয়মিত হাত ধোয়া। আর কারো মধ্যে করোনাভাইরাসের লক্ষণগুলো থাকলে সেলফ আইসোলেশনে থাকার জন্য বলা হচ্ছে।

তবে যুক্তরাজ্যের অ্যাজমা সংস্থা সতর্ক করে জানিয়েছে, ফেস মাস্ক হাঁপানি রোগীদের শ্বাস-প্রশ্বাসকে নেওয়াকে আরো কঠিন করে তুলতে পারে।

অ্যাজমা ইউকে’র মতে, অ্যাজমা আক্রান্ত কিছু লোকের জন্য ফেস মাস্ক পরা সহজ নয়। এটি শ্বাস নিতে কঠিন বোধ করাতে পারে। মাস্ক পরে শ্বাস নিতে সমস্যা হলে এটি না পরার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

নিউইয়র্ক ইউনিভাসিটির ইমিউনোলজি বিশেষজ্ঞ ডা. পারভি পারিখের মতে, ব্রঙ্কাইটিস, এম্ফিজিমা এবং ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ (সিওপিডি) সহ ফুসফুস সংক্রান্ত অন্যান্য রোগীদের ফেস মাস্ক এড়ানো উচিত।

মেইল অনলাইনকে তিনি এর ব্যখ্যায় বলেছেন, যারা ফুসফুসের গুরুতর দশার কারণে ক্যাচ-২২ অবস্থায় আছেন, তাদের সম্ভবত ফেস মাস্কের প্রয়োজন সাধারণ মানুষের চেয়ে বেশি। তবে এতে শ্বাস নেওয়াটা চ্যালেঞ্জ হতে পারে। টাইট ফেস মাস্ক কারো কারো শ্বাস নিতে সমস্যা করতে পারে।’

ডা. পারিখ আরো বলেছেন, ‘এখন গরম কালে তাপমাত্রা বাড়তে থাকায় ফেস মাস্ক পরে শ্বাসকার্য আরো কঠিন করে তুলতে পারে। এছাড়া গরমে ফেস মাস্ক অস্বস্তিকরও হতে পারে।’

x

Check Also

বড় পর্দার তিন ক্যামেরার নতুন স্মার্টফোন ছাড়ছে ওয়ালটন

তিন ক্যামেরার নতুন স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ছে দেশীয় প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। বড় পর্দার ফোনটির মডেল ‘প্রিমো এনফোর’। করোনাভাইরাস দুযোর্গের মধ্যে ঘরে বসেই মানুষ যাতে নতুন ফোনটি হাতে পান, সেজন্য অনলাইনে নেয়া হবে প্রি-অর্ডার। প্রি-অর্ডারে থাকবে ...

ভুল নম্বরে বিকাশ করলে কী করবেন?

জীবন সহজ, স্বাচ্ছন্দ্যময় করে তুলতে মোবাইল ব্যাংকিং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। যদিও এর বিড়ম্বনা কম নয়। অনেকে মোবাইল ব্যাংকিং-এর মাধ্যমে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন। আবার অনেক সময় ভুল ডিজিট চাপার কারণে টাকা চলে যাচ্ছে অন্যের অ্যাকাউন্টে। ...

এক হাজার কোটি টাকা দিল গ্রামীণফোন

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) এক হাজার কোটি টাকা দিয়েছে দেশের শীর্ষ মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন। রোববার বিকেল সাড়ে ৩টার পর বিটিআরসির চেয়ারম্যানের কাছে গ্রামীণফোনের কর্মকর্তারা এ টাকার চেক হস্তান্তর করেন। গত শুক্রবার এক বিবৃতিতে এ ...

শিরোনামঃ